করোনা: চাপে পড়ে সব প্রকাশ করলো চীন

চীন থেকে উৎপত্তি হওয়া কোভিড-১৯ ভাইরাস সারাবিশ্বে তাণ্ডব চালিয়ে যাচ্ছে। এশিয়া, ইউরোপসহ কোন মহাদেশকে ছাড় দেয়নি এই ভয়ঙ্কর ভাইরাস। এদিকে চীন করোনা ভাইরাস নিয়ে তথ্য গোপন করেছে এমন অভিযোগ তুলেছিল যুক্তরাষ্ট্রসহ কয়েকটি দেশ।

বিভিন্ন দেশের কড়া অভিযোগে একরকম কোণঠাসা হয়ে পড়েছিল চীন। অবশেষে দেশে করোনা সংক্রমণ নিয়ে মুখ খুললো চীন। চীনে কবে, কোথায় করোনা সংক্রমণের ঘটনা সামনে এসেছে, এইসব তথ্য নিয়ে একটি শ্বেতপত্র প্রকাশ করেছে দেশটির সরকার।

আজ রবিবার চীন জানায়, গত বছরের ২৭ ডিসেম্বর প্রথম করোনা রোগী শনাক্ত করা হয়েছিল। কিন্তু করোনাভাইরাসের কারণে নিউমোনিয়ায় আক্রান্ত হওয়া এবং মানব শরীর থেকে মানব শরীরে সংক্রমণ ছড়িয়ে পড়ার ঘটনা প্রথম চলতি বছরের ১৯ জানুয়ারি জানা যায় বলে দাবি করেছে বেজিং। চীনের দাবি, গত ১৯ জানুয়ারি একজনের শরীর থেকে অন্যের শরীরে সংক্রমণের এই ঘটনা সামনে আসার পরই তা রুখতে ব্যবস্থা নেওয়া হয়।

এদিকে তাদের বিরুদ্ধে যেসকল অভিযোগ উঠেছিল সেগুলো এখনো অস্বীকার করছে চীন।  করোনা ভাইরাস সংক্রমণের কথা গোপন করা নিয়ে আন্তর্জাতিক স্তরে ওঠা অভিযোগ পুরোপুরি অস্বীকার করে আত্মপক্ষসমর্থনে শ্বেতপত্রে বিশদে ব্যাখ্যাও দিয়েছে চীন।

মার্কিন রাষ্ট্রপতি ডোনাল্ড ট্রাম্প সহ একাধিক দেশের রাষ্ট্রপ্রধানরা অভিযোগ করেছেন, চীন সময়মতো তথ্য না জানানোর কারণেই গোটা বিশ্বে ছড়িয়ে পড়েছে করোনাভাইরাস। পরিস্থিতি সামাল দিতে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার ভূমিকা নিয়েও প্রশ্ন উঠতে শুরু করেছে।

চীনে করোনাভাইরাসের উৎসস্থল হলেও এখন সেদেশ তা অনেকটাই নিয়ন্ত্রণে। বরং করোনাভাইরাস মহামারি বিশ্বের অন্যান্য অনেক দেশে চীনের থেকেও কয়েকগুণ ভয়াবহ রূপ ধারণ করেছে। আমেরিকা, ব্রাজিল, স্পেন, ইতালি, রাশিয়া ও ভারতসহ বিভিন্ন দেশ এখন করোনার ধাক্কা সামাল দিতে লড়াই করে যাচ্ছে। যার জেরে গোটা বিশ্বে করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা ৬৮ লক্ষ ছাড়িয়ে গিয়েছে। মৃত্যু হয়েছে ৪ লক্ষেরও বেশি মানুষের।

শ্বেতপত্রে চীন দাবি করেছে, গত ২৭ ডিসেম্বর ইউহানের একটি হাসপাতালে প্রথম বার করোনাভাইরাস আক্রান্ত রোগীকে চিহ্নিত করা হয়। এর পরই বিষয়টি নিয়ে স্থানীয় সরকার বিশেষজ্ঞদের পরামর্শ নেয়। শ্বেতপত্রে আরও দাবি করা হয়েছে, সরকারের গঠিত একটি উচ্চ পর্যায়ের বিশেষজ্ঞ কমিটি গত ১৯ জানুয়ারি প্রথমবার জানায়, মানব দেহ থেকে অন্য মানুষের শরীরে করোনার সংক্রমণ ঘটতে পারে। এর পরই সংক্রমণ রুখতে যাবতীয় পদক্ষেপ করা হয়।


আরো পড়ুন>>>


দিনের ব্রেকিং নিউজ সবার আগে পেতে আমাদের সাথে যুক্ত থাকুন:facebook-button-join-group

সরকারি এবং বেসরকারি চাকুরির নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি পেতে

facebook-button-join-group

Agami Soft. - Inventory Management System

পাঠকের মতামত