এক কেজি পেঁয়াজের দামে পাওয়া যাচ্ছে দেড় মণ খিরা!

এক কেজি পেঁইয়াজের দামে পাচ্ছেন দেড় মণ খিরা! এমনটাই হচ্ছে সিরাজগঞ্জের বৃহত্তম চলনবিল অঞ্চলের দিঘরিয়া খিরা আড়তে। সেখানে প্রতি কেজি খিরা বিক্রি হচ্ছে ১ টাকা পাইকারি দরে। আর অন্যিদকে আড়তের পাশের বাজারেই পেঁয়াজ বিক্রি হচ্ছে ৬০ টাকা করে।

যদি হিসেব করা হয় তাহলে দেখা যাচ্ছে, এক কেজি পেঁয়াজের দাম দিয়ে প্রায় দেড় মণ খিরা কিনতে পারা যাবে। এবার প্রায় ৪৪০ হেক্টর জুড়ে খিরা চাষ করা হয়েছে। আবহাওয়া অনুকূলে থাকায় আবাদও হয়েছে প্রচুর। কিন্তু খিরার এমন দামে চরম দুশ্চিন্তায় পড়েছে খিরা স্থানীয় চাষিরা।

দেখা যায়, পার্শ্ববর্তী সিংড়া, গুরুদাসপুর, রায়গঞ্জ ও চাটমোহর উপজেলার চাষিরাও খিরা নিয়ে আড়তে এসেছেন। যাদের অনেকে এক টাকা কেজি বিক্রি না করে রাস্তায় খিরা ফেলে প্রতিবাদ করছেন। এ সময় চাষিরা কান্নায় ভেঙে পড়েন।

খিরা চাষিরা জানান, একবিঘা জমিতে খিরার চাষ করতে সবমিলিয়ে ২০/২২ হাজার টাকা হয়েছে। ক্ষুদ্র বর্গাচাষিরা প্রতি বিঘা জমি ১০/১২ হাজার টাকায় বর্গা নিয়ে আবাদ করায় তাদের খরচ তুলনামূলক বেশি হয়েছে। গতবছর সর্বনিম্ন ২৫০/৩০০ টাকা মন খিরা বিক্রি করেছেন। আর এ বছর মাত্র ৪০ টাকা মন। উৎপাদন ব্যয় তো দূরের কথা, পরিবহন খরচ না জোটায় অনেক চাষি তাদের খিরার জমি ভেঙে বিকল্প আবাদের চেষ্টা করছেন।

এ প্রসঙ্গে উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা লুৎফুন নাহার লুনা জানান, খিরা চাষিরা ভালো ফলন পেয়েও দাম কম হওয়ায় ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছেন। তবে খিরার জমি নষ্ট না করে তিনি চাষিদের কয়েকদিন ধর্য ধরার পরামর্শ দেন।



আরো পড়ুন:


দিনের ব্রেকিং নিউজ সবার আগে পেতে আমাদের সাথে যুক্ত থাকুন:facebook-button-join-group

সরকারি এবং বেসরকারি চাকুরির নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি পেতে

facebook-button-join-group

Agami Soft. - Inventory Management System

পাঠকের মতামত