প্রথম দিনে উজ্জ্বল নাঈম হাসান

ফাইল ছবি।

সিরিজের একটি মাত্র টেস্ট ম্যাচে টস হেরে ফিল্ডিং পেল বাংলাদেশ। তবে বোলিং করতে এসে কম নাকানিচুবানি খাওয়াননি জিম্বাবুইয়ানদের। শুরুর চার ওভারে কোন রানই আনতে দেননি আবু জায়েদ রাহি এবং এবাদত হোসেন। পাঁচ ওভার শেষে ১ রান করতে সক্ষম হয়েছিল আফ্রিকানরা।

মমিনুলদের প্রথম আনন্দ এনে দিয়েছিলেন আবু জায়েদ। কেভিন কাসুজাকে মাত্র ২ রানে ফেরান তিনি। তবে এরপর অধিনায়ক ক্রেইগ আরভিন ওপেনার শতরানের জুটি গড়ে দলকে ভালো অবস্থানে নিয়ে যান। তবে প্রিন্স মাসভাউরে ৬৪ রান করে নায়েম হাতে ক্যাচ দিয়ে মাঠ ছাড়েন।

কিন্তু একপ্রান্ত আগলে রাখেন আরভিন। তার সাথে জুটি গড়তে আসেন অভিজ্ঞ ব্রেন্ডন টেইলর। কিন্তু তাকে ক্রিজে দাঁড়ানোর সুযোগই দিলেন না নাঈম। টেইলরকে ব্যক্তিগত ১০ রানে নিজের দ্বিতীয় শিকার বানিয়ে প্যাভিলিয়নে পাঠানে টাইগার স্পিনার।

অবশ্য আজকের দিনটি নাঈমের ছিল বলা যেতে পারে। তার স্পিনবিষে একেবারে অস্থির হয়ে উঠেছিল আরভিন, সিকান্দার রাজারা। ৩৬ ওভার করে ১.৪৯ রান রেটে রান দিয়েছেন মোটে ৬৪। তার সাথে ৪টি মেডেন ও ৪টি উইকেট। এমনকি সেঞ্চুরি করা আরভিনকেও তিনি তুলে নিয়েছেন।

দিন শেষে ৬ উইকেটে ২২৮ রান তুলতে সক্ষম হয়েছে জিম্বাবুয়ে। দলের হয়ে সর্বোচ্চ ১০৭ রান করেন ক্রেইগ আরভিন এবং প্রিন্স মাসভাউরে। অন্যদিকে দুই টাইগার বোলার আবু জায়েদ (২) এবং নাঈম হাসান (৪) মিলে আফ্রিকানদের ৬ উইকেট তুলে নেন।

 

Agami Soft. - Inventory Management System

পাঠকের মতামত