শহীদ মিনারে নেওয়া হয়েছে তিন স্তরের নিরাপত্তা

আজ দুপুর পর্যন্ত প্রথম ধাপ নিরাপত্তা ব্যবস্থা বিদ্যমান থাকবে। আজ দুপুর থেকে শুক্রবার দুপুর পর্যন্ত দ্বিতীয় ধাপ এবং পরবর্তী সময়ে তৃতীয় ধাপের নিরাপত্তা ব্যবস্থা বলবৎ থাকবে। তবে দ্বিতীয় ধাপের নিরাপত্তা ব্যবস্থা সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ।

আগামিকাল ২১ ফেব্রুয়ারি, শহীদ দিবস। ১৯৫২ সালে বাংলা ভাষার জন্য প্রাণ দেওয়া ভাষা শহীদদের স্মরণে এদিন শহীদ মিনারে ফুলেল শ্রদ্ধা জানাবে সারাদেশের মানুষসহ রাজধানীবাসী। শ্রদ্ধা নিবেদন নির্ভিঘ্নে পালন করার জন্য শহীদ মিনার এলাকাকে ৫ সেক্টরে বিভক্ত করা হয়েছে।

মোট তিন স্তরের নিরাপত্তা নেওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন র‍্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়নের (র‍্যাব) মহাপরিচালক (ডিজি) বেনজীর আহমেদ। আজ বৃহস্পতিবার বেলা ১১টায় নিরাপত্তা পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ করে তিনি সাংবাদিকদের এ তথ্য দেন।

বেনজীর আহমেদ সাংবাদিকদের বলেন – অমর একুশকে সামনে রেখে বহুমুখী নিরাপত্তা ব্যবস্থা হাতে নেওয়া হয়েছে। তিন ধাপের নিরাপত্তা ব্যবস্থার মধ্যে আজ দুপুর পর্যন্ত প্রথম ধাপ নিরাপত্তা ব্যবস্থা বিদ্যমান থাকবে। আজ দুপুর থেকে শুক্রবার দুপুর পর্যন্ত দ্বিতীয় ধাপ এবং পরবর্তী সময়ে তৃতীয় ধাপের নিরাপত্তা ব্যবস্থা বলবৎ থাকবে। তবে দ্বিতীয় ধাপের নিরাপত্তা ব্যবস্থা সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ।

তিনি বলেন – কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারের পাঁচ সেক্টরে সার্বিক নিরাপত্তায় নিয়োজিত থাকবে র‍্যাব। পুরো এলাকায় পর্যাপ্ত পরিমাণ ফুট পেট্রোল, বাইক ও কার পেট্রোল টিম নজরদারি করবে। সাদা পোশাকে বিপুল সংখ্যক র‌্যাব সদস্য দায়িত্ব পালন করবে। যেকোনো পরিস্থিতি মোকাবেলায় স্পেশাল ফোর্স রিজার্ভ থাকবে এবং র‌্যাবের হেলকপ্টার স্ট্যান্ডবাই থাকবে।

তিনি আরো বলেন – আজিমপুর কবরস্থানেও অনেকে শহীদদের কবরে শ্রদ্ধা জানাবেন, সেখানেও র‌্যাবের নিরাপত্তা ব্যবস্থা বলবৎ থাকবে। এছাড়া ঢাকার বাইরে বিভাগীয় এবং জেলা পর্যায়ে গুরুত্বপূর্ণ এলাকায় একুশের নিরাপত্তায় র‌্যাবের নজরদারি থাকবে।’

র‌্যাব ডিজি বলেন – এ ধরনের জাতীয় গুরুত্বপূর্ণ ইভেন্টে যতো বেশি নিরাপত্তা থাকবে, মানুষ ততো স্বাচ্ছন্দ্যে এবং আত্মবিশ্বাসের সঙ্গে অংশ নিতে পারবেন। নিরাপত্তার বিষয়টি এখন শুধু বাংলাদেশেরই বিষয় নয়, এটি বৈশ্বিক চিত্র। বাংলাদেশও নিরাপত্তার ক্ষেত্রে গ্লোবাল স্ট্যান্ডার্ড মেইনটেইন করে থাকে। তাই নিরাপত্তা বিষয়টিকে অতিরিক্ত না দেখে জীবনের অবিচ্ছেদ্য অংশ হিসেবে দেখা উচিৎ।

র‌্যাব প্রধান বলেন – আমরা প্রতিনিয়ত হুমকির বিষয়টি পর্যালোচনা করছি। র‌্যাবের নিজস্ব গোয়েন্দা সংস্থা অন্যান্য গোয়েন্দা সংস্থার সঙ্গে সমন্বয় করে তথ্য-উপাত্ত পর্যালোচনা করছে। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমগুলোতেও নজর রয়েছে। যেকোনো হুমকির বিষয়টি মাথায় রেখে প্রয়োজনীয় নিরাপত্তা ব্যবস্থা হাতে নেওয়া হয়েছে এবং প্রয়োজনে তা হালনাগাদ করা হবে।



আরো পড়ুন:


দিনের ব্রেকিং নিউজ সবার আগে পেতে আমাদের সাথে যুক্ত থাকুন:facebook-button-join-group

সরকারি এবং বেসরকারি চাকুরির নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি পেতে

facebook-button-join-group

Agami Soft. - Inventory Management System

পাঠকের মতামত