শৈত্যপ্রবাহের পরে বৃষ্টির আভাস!

হিমালয়ের পাদদেশ থেকে আসা ঠান্ডা বাতাসের প্রভাবে কক্সবাজার ও পার্বত্য চট্টগ্রাম ছাড়া দেশের সব এলাকায় শৈত্যপ্রবাহ চলছে। আজ সোমবার সকাল থেকেও তার ব্যতিক্রম হয়নি। তবে এটি আগামীকাল অর্থ্যাৎ, মঙ্গলবার নাও থাকতে পরে জানিয়েছে আবহাওয়া অধিদপ্তর।

আগামীকাল তাপমাত্রা কিছুটা বাড়ার সম্ভাবনা রয়েছে বলে জানিয়েছে আবহাওয়া অফিস। তবে বুধবার ও বৃহস্পতিবার দেশের বিভিন্ন স্থানে মৃদু থেকে মাঝারি ধরণের বৃষ্টি হতে পারে। দেশের ৩২ জেলায় আগামী ২৯ এবং ৩০ জানুয়ারি বৃষ্টি হওয়ার জোর সম্ভাবনা রয়েছে।

বৃষ্টির কারণে ফসলের জমিতে সেচ, সার ও বালাইনাশক ব্যবহার বন্ধ রাখার নির্দেশ দিয়েছে কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর ও আবহাওয়া অধিদপ্তর। কৃষি আবহাওয়া সতর্কবার্তায় আরো বলা হয়েছে – জমির পরিপক্ব সবজি ও ফল সংগ্রহ করে ফেলতে হবে। জমিতে যাতে পানি জমতে না পারে, সে জন্য নালা তৈরি করে দিতে হবে এবং জমির আইল উঁচু করে দিতে হবে। দণ্ডায়মান ফসলের জন্য বিশেষ খুঁটির ব্যবস্থা করতে হবে।

আবহাওয়াবিদ মনোয়ার হোসেন বলেন – একটি বড় মেঘমালা ভারত হয়ে বাংলাদেশের দিকে এগিয়ে আসছে। আগামী বুধ ও বৃহস্পতিবার বৃষ্টি হওয়ার পর শুক্রবার তাপমাত্রা কিছুটা বাড়তে পারে। তারপর আরেক দফা তাপমাত্রা কমতে পারে।

আবহাওয়া অধিদপ্তরের পর্যবেক্ষণ অনুযায়ী, গত ১৯ ডিসেম্বর থেকে দেশের বিভিন্ন স্থানে শৈত্যপ্রবাহ শুরু হয়েছে। মাঝখানে সাত থেকে আট দিনের বিরতি গেছে। বাকি সময়জুড়ে দেশের কোথাও না কোথাও শৈত্যপ্রবাহ বয়ে গেছে।

গত বৃহস্পতিবার শুরু হওয়া শৈত্যপ্রবাহটি শুরুতে দেশের এক-তৃতীয়াংশ এলাকায় ছিল। গতকাল রোববার তা দেশের ৮০ ভাগ এলাকাজুড়ে বিস্তৃত হয়ে পড়েছে। গতকাল দেশের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ছিল পঞ্চগড়ের তেঁতুলিয়ায় ৬ দশমিক ৩ ডিগ্রি সেলসিয়াস। রাজধানীর সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ছিল ১২ দশমিক ৭ ডিগ্রি সেলসিয়াস।

Agami Soft. - Inventory Management System

পাঠকের মতামত