সকালে এক কোঁয়া রসুন আপনার যেসকল উপকার করবে

রান্না করার সময় গুরুত্বপুর্ণ মসলার মধ্যে একটি হচ্ছে ‘রসুন’। রসুনকে আমরা সাধারণত মসলা হিসেবেই বেশি চিনে থাকি। তবে এই মসলার আছে নানাবিধ গুণ। শুধু রান্না ছাড়াও রসুনের আরোকিছু উপকারি ব্যবহার আছে। এমনকি কাঁচা রসুনের কোঁয়াও শরীরের অনেক উপকার করে থাকে।

রসুন নিয়ে কিছু বাড়তি তথ্য: রসুন একটি লিলি শ্রেণীর বহুবর্ষজীবী ফসল। রসুনের বৈজ্ঞানিক নাম Allium Sativum (অ্যালিয়াম স্যাটিভাম)। এটি রসুন মসলা জাতীয় ফসলের মধ্যে পড়লেও এর অনেক ভেষজ গুণাগুণ রয়েছে। রসুন রক্তে কোলেস্টেরল কমাতে সাহায্য করে থাকে। একইসাথে, এটি রক্তচাপ কম করতে সাহায্য করে।

রসুন ক্যালসিয়ামে ভরপুর। এর মধ্যে স্বল্প পরিমাণে ভিটামিন ‘সি’ এবং আমিষের উপস্থিতি আছে। কৃমির বিরুদ্ধে রসুন খুব ভালো কাজ করে থাকে। তাছাড়া, শ্বাসকষ্ট থেকে শুরু করে হজমশক্তি বাড়াতে রসুন একটি সামনের কাতারের খাবার।

রসুনের ভেষজ গুণাগুণ: ডাক্তারদের মতে, সকালে খালি পেটে এক কোঁয়া রসুন খাওয়া স্বাস্থ্যের জন্য অনেক উপকারি। নানাবিধ কষ্টদায়ক রোগ থেকে মুক্তি পেতে রসুনের জুড়ি নেই বলে মনে করেন চিকিৎসকরা। শুধু তাই ই নয়, রসুন প্রাকৃতিক অ্যান্টিবায়োটিক ও অ্যান্টিওক্সিডেন্টে ভরপুর।

অনেক সময় পেট খালি থাকার পর এটি খেলে এর রস সহজে শরীরকে ডিটক্সিফাই করতে পারে। সকালে ঘুম থেকে ওঠার পর মেটাবলিক রেটও একটু বেশি থাকে। তাই খালি পেটে এ মসলা খেলে উপকার পাওয়া যাবে।

সকালে খালিপেটে রসুন খেলে যে উপকার পাওয়া যায়:

  • রাতে বিপাকক্রিয়া কিছুটা ধীরে ধীরে হয়ে থাকে। কারণ রাতের খাবারের তেমন কোনো ভারী কাজ করা হয় না। এজন্য সকালে ঘুম থেকে যদি খালি পেটে এক কোঁয়া রসুন খাওয়া যায় তাহলে বিপাকক্রিয়ার কাজ উন্নত হয়। ফলে শরীরের মধ্যে থাকা দূষিত টক্সিন মূত্রের মধ্য দিয়ে সহজে বেরিয়ে যেতে পারে।
  • রসুনে প্রচুর পরিমানে ‘অ্যান্টিওক্সিডেন্ট’ থাকে। এই উপাদানটি রক্ত পরিশুদ্ধ করতে সাহায্য করে। রসুন উপস্থিত শর্করার পরিমাণ নিয়ন্ত্রণেও সাহায্য করে থাকে।
  • যেসকল মানুষের উচ্চ রক্তচাপের সমস্যা আছে। তারা সকালে খালি পেটে রসুন খেতে পারেন। এটি রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণে সাহায্য করে থাকে। রক্ত সঞ্চালন ঠিক রাখতে রসুন খেতে পারেন।
  • হার্টের রোগীদের ক্ষেত্রে রসুন বিশেষ কার্যকর। হৃদস্পন্দনের হার নিয়ন্ত্রণ করতে ও হৃদপেশির দেয়ালে চাপ কমাতে সাহায্য করে। শীতে ঠাণ্ডা লাগলে খালি পেটে এক কোয়া রসুন খেলে উপকার পাওয়া যাবে। দুই সপ্তাহ সকালে রসুন খেলে ঠাণ্ডা লাগার প্রবণতা অনেকটা কমে।
  • যকৃত ও মূত্রাশয়কে নিজের কাজ করতে সাহায্য করে রসুন। এ ছাড়া পেটের নানা সমস্যাও হজমের সমস্যা মেটাতেও রসুন ভালো কাজ করে। ভাইরাস ও সংক্রমণজনিত অসুখ যেমন- ব্রংকাইটিস, নিউমোনিয়া, হাঁপানি, হুপিং কাফ ইত্যাদি প্রতিরোধে করে।
  • স্নায়বিক চাপ কমিয়ে মানসিক চাপকে নিয়ন্ত্রণে রাখতে সক্ষম রসুন।
Agami Soft. - Inventory Management System

পাঠকের মতামত