দুটি নতুন শহর করবে রাজউক

৬০ শতাংশের বেশি জলাশয় রেখে ঢাকার তুরাগ তীরে ও কেরানীগঞ্জে দুটি পরিবেশবান্ধব শহর নির্মাণ করতে চাইছে রাজধানী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ (রাজউক)। এ  প্রকল্পের সম্ভাব্যতা যাচাই ও পরিবেশগত সমীক্ষা করতে গতকাল রাজধানীর একটি হোটেলে রাজউক ও চায়না রোড অ্যান্ড ব্রিজ করপোরেশনের (সিআরবিসি) মধ্যে একটি সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষরিত হয়েছে।

রাজউকের পক্ষে সংস্থাটির চেয়ারম্যান ড. সুলতান আহমেদ এবং সিআরবিসির পক্ষে প্রতিষ্ঠানটির প্রধান প্রকৌশলী সুন ইয়োগুও স্মারকে স্বাক্ষর করেন। ‘তুরাগ নদের বন্যা প্রবাহ অঞ্চল সংরক্ষণ এবং কমপ্যাক্ট টাউনশিপ উন্নয়ন প্রকল্প’ ও ঢাকার কেরানীগঞ্জে প্রস্তাবিত ‘ওয়াটারফ্রন্ট স্মার্ট সিটি’ শীর্ষক প্রকল্পের এ সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষর অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন গৃহায়ণ ও গণপূর্তমন্ত্রী শ ম রেজাউল করিম।

তিনি বলেন – আমরা প্রকৃতিকে সংরক্ষণ করে শহর গড়ে তুলব। স্থাপনা নির্মাণের ক্ষেত্রে প্রকৃতিকে রক্ষা করতে না পারলে তা আমাদের কাজে আসবে না। এ জন্য প্রকল্প দুটি নেওয়া হয়েছে। আমরা একশ বছরের ডেল্টা প্ল্যান গ্রহণ করেছি। প্রত্যেক নাগরিকের জন্য বাসস্থান নিশ্চিত করার নির্দেশনা দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী। সেই লক্ষ্যে কাজ করছি। রাজউকের চেয়ারম্যান ড. সুলতান আহমেদের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য রাখেন গৃহায়ণ ও গণপূর্ত মন্ত্রণালয়ের সচিব মো. শহীদ উল্লা খন্দকার, রাজউকের সদস্য (পরিকল্পনা) মো. আজহারুল ইসলাম খান প্রমুখ।

রাজউক চেয়ারম্যান বলেন – তুরাগ টাউনশিপ প্রকল্পে প্রায় ৭০ শতাংশ ভূমি জলাশয় ও ইকোসিস্টেমের জন্য সংরক্ষণ করা হবে এবং মাত্র ৩০ শতাংশ ভূমি টাউনশিপের জন্য ব্যবহার করা হবে। প্রকল্পে যাদের জমি অধিগ্রহণ করা হবে তাদের কেউ প্লট বা ফ্ল্যাট প্রাপ্তি থেকে বঞ্চিত হবেন না। প্রধানমন্ত্রী ইতিমধ্যে মাস্টারপ্ল্যান অনুমোদন দিয়েছেন। তুরাগ টাউনশিপ প্রকল্প বাস্তবায়ন এ মাস্টারপ্ল্যানের একটি অংশ।

সমঝোতা স্মারকের আওতায় চায়না রোড অ্যান্ড ব্রিজ করপোরেশন নিজস্ব অর্থায়নে এক বছরের মধ্যে উল্লিখিত প্রকল্পের সম্ভাব্যতা যাচাই ও পরিবেশগত সমীক্ষা সম্পাদন করবে। সিআরবিসি উল্লিখিত প্রকল্পে বিনিয়োগে আগ্রহ প্রকাশ করেছে।

Agami Soft. - Inventory Management System

পাঠকের মতামত