বঙ্গোপসাগরের দিকে ধেয়ে আসছে ঘুর্ণিঝড় ‘নাকরি’

সংগৃহীত ছবি: চারদিন আগে নেওয়া ঘুর্ণিঝড় 'নাকরির' স্যাটেলাইট চিত্র।

কিছুদিন আগেই বাংলাদেশের উপকূলীয় অঞ্চলে আছড়ে পড়েছিল ঘুর্ণিঝড় ‘বুলবুল’। ভোলাসহ কয়েকটি অঞ্চলে এটি ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি সাধন করেছিল। এবার তার রেশ কাটতে কাটতেই আরো একটি দুঃসংবাদ বাংলাদেশের জন্য অপেক্ষা করছে। ভারতের আবহাওয়া অফিস ঠিক এমনটাই ইঙ্গিত দিয়েছে।

ভারতের আবহাওয়া অফিসের বরাত দিয়ে গণমাধ্যমগুলো জানায়, বঙ্গোপসাগরের দিকে ধেয়ে আসছে ভয়ংকর আরেকটি ঘুর্ণিঝড় ‘নাকরি’। ঘুর্ণিঝড়টি বর্তমান অবস্থান চিহ্নিত করা গেলেও কবে নাগাত এটি উপকূলে আঘাত হানবে সেটি স্পষ্ট করেনি আবহাওয়া অফিস।

তবে গণমাধ্যমগুলো জানিয়েছে, এই ঘুর্ণিঝড় শক্তি বাড়িয়ে ভারতের অন্ধ্রপ্রদেশের উত্তর দিক ও উড়িশা উপকূলবর্তী এলাকাগুলোতে আঘাত হানবে। তবে ভারতের তামিনাড়ুতে সবথেকে ক্ষয়ক্ষতি করতে পারে ঘুর্ণিঝড় ‘নাকরি’। যদিও এই মুহূর্তে এই ঘূর্ণিঝড়ের ভারতে আছড়ে পড়ার সঠিক সময় অনুমান করা সম্ভব হয়নি। এর প্রভাব পড়বে বাংলাদেশেও।

এর ভয়াবহতা জানতে ইতিমধ্যে স্যাটেলাইট ম্যাপিং সিস্টেম চালু করেছে ইউরোপীয়ান কমিশন। গত ৮ নভেম্বর থেকে এই ম্যাপিং সিস্টেম চালু করা হয়েছে। বর্তমানে ২৪ ঘন্টার সতর্কবার্তা হিসেবে ভিয়েতনামের পূর্ব ও উত্তর ভাগেও ভারী বৃষ্টিপাত ও বজ্রপাতের আশঙ্কা করছে সে দেশের আবহাওয়া দফতর।

তারা মনে করছে, দক্ষিণ থাইল্যান্ড অতিক্রম করে মায়ানমারের দক্ষিণ ভাবে এসে পৌঁছবে এই ঘূর্ণাঝড়। মায়ানমার পর্যন্ত এসে পৌঁছলেও এই ঘূর্ণাবর্তের লন্ডভন্ড করার শক্তি আর অবশিষ্ট থাকবে না। খুব বেশি হলে ভারী বর্ষণের সম্ভাবনা।

Agami Soft. - Inventory Management System

পাঠকের মতামত