বুলবুল তাণ্ডব: শুধু ভোলায় ৫৭ হাজার জমির ফসল বিনষ্ট

সংগৃহীত ছবি।

ভোলায় ঘূর্ণিঝড় ‘বুলবুল’র প্রভাবে ৫৭ হাজার ১৮৭ হেক্টর জমির ফসলের ক্ষতি হয়েছে। এরমধ্যে সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে আমন ধান ও খেসারি ডাল। এছাড়াও পান ও শীতকালীন সবজি ২৫ ভাগ ক্ষতি হওয়ার আশঙ্কা করছে কৃষি বিভাগ।

জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অফিসের তথ্যমতে, এ বছর জেলায় আমন আবাদ হয়েছে এক লাখ ৭৯ হাজার ২৮০ হেক্টর। এরমধ্যে আক্রান্ত হয়েছে ৫৩ হাজার ৭৮৩ হেক্টর। শীতকালীন সবজি আবাদ হয়েছে ২ হাজার ৭৪২ হেক্টর, দুর্যোগে আক্রান্ত হয়েছে পুরো জমি।

অন্যদিকে, খেসারি ডালের আবাদ হয়েছে ৫৩৬ হেক্টর, যার সম্পূর্ণ আক্রান্ত এবং পান আবাদ হয়েছে ৫৩৬ হেক্টর যারমধ্যে দুর্যোগের কবলে ১৩৪ হেক্টর। দুর্যোগ কবলিত ফসলের মধ্যে আমন ধান ১০ ভাগ, শীতকালীন সবজি ও ডাল শতভাগ এবং পান ক্ষতিগ্রস্ত হতে পারে ২৪ ভাগ।

ভোলা সদরের ভেলুমিয়ায় বেশিরভাগ ধান পানিতে তলিয়ে রয়েছে। অধিকাংশ হেলে পড়েছে। এখানে ক্ষয়ক্ষতির সম্ভাবনা অনেক বেশি। ভোলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক বিনয় কৃষ্ণ বলেন – আমরা কৃষকদের দ্রুত পানি সেচ দিতে বলেছি। এছাড়াও মাঠে উপ-সহকারী কৃষি কর্মকর্তারা মাঠে কৃষকদের বিভিন্ন পরামর্শ দিয়ে যাচ্ছেন।

এদিকে, মিরসরাই উপজেলা কৃষি অফিস সূত্রে জানা গেছে, চলতি বছর মিরসরাইয়ে ২০ হাজার ৫০০ হেক্টর আমন ধান চাষ হয়েছে। এদের মধ্যে ঘূর্ণিঝড় বুলবুলের আঘাতে ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে ৭০০ হেক্টর ধান। ১১শত হেক্টর সবজি চাষ হয়েছে। ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে ৫০ হেক্টর। এছাড়া ৪০০ হেক্টর খেসারির মধ্যে ১০০ হেক্টর খেসারিতে পানি জমে গেছে।

অপরদিকে, বরগুনায় ফসলের জমির ক্ষয়ক্ষতি নিয়ে কৃষি সম্প্রসারণ অধিদফদর সূত্রে জানা গেছে, এবছর জেলায় ৯৮ হাজার ৬৩৯ হেক্টর জমিতে আমন ধানের চাষ হয়েছে। ঘূর্ণিঝড়ের আঘাতে ৯ হাজার ৮৬৩ হেক্টর জমি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। এছাড়া শীতকালীন শাক সবজি চাষ হয়েছে ১১ হাজার হেক্টর জমিতে। এর মধ্যে নষ্ট হয়ে গেছে ৫৫০ হেক্টর জমির সবজি। পানের বরজ ও মরিচের বীজতলার ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে।

#এ কে এম গিয়াসউদ্দিন, ভোলা প্রতিনিধি।

Agami Soft. - Inventory Management System

পাঠকের মতামত