মুসলিম নারীদের আপত্তিকর কাজে বাধ্য করছে চীন!

চীনের মুসলিম সম্প্রদায়কে সাধারণত উইঘুর মুসলিম হিসেবে ডাকা হয়ে থাকে। কয়েক বছর ধরে উইঘুরের মুসলিমদের উপর নানাভাবে নির্যাতন চালিয়ে আসছে চীনা সরকার। পুরুষ মুসলিমদের ধরে নিয়ে গিয়ে বন্দী করে রাখা হচ্ছে। এবার উইঘুরের বিবাহিত মুসলিম নারীদের আপত্তিকর কাজে জড়াতে বাধ্য করছে চীন সরকার।

ব্রিটিশ গণমাধ্যম ডেইলি মেইল এ নিয়ে ৪ নভেম্বর এক প্রতিবেদনে জানায়, চীনের সরকারি কর্মকর্তাদের সঙ্গে আপত্তিকর সম্পর্কে জড়াতে মুসলিম নারীদের বাধ্য করা হচ্ছে। বন্দী মুসলিম পুরুষদের বাসায় সরকারি কর্মকর্তাদের পাঠাচ্ছে চীন। মুসলিম নারীদের একই বিছানার সরকারি কর্মকর্তাদের সঙ্গে থাকতে বাধ্য করা হচ্ছে বলে প্রতিবেদনে দাবি করা হয়েছে।

Daily Mail

চীনের জিনজিয়াং প্রদেশের উইঘুর সম্প্রদায়ের বিবাহিত নারীরা (যাদের স্বামীরা বন্দী) তাদের বাড়ি পরিদর্শন করতে সরকারি কর্মকর্তাদের ‘আমন্ত্রণ’ জানাতে বাধ্য। এসব সরকারি কর্মকর্তাদের নাম দেয়া হয়েছে ‘আত্মীয়’ এবং যাদের বেশিরভাগই পুরুষ।

দুই মাস পরপর তারা মুসলিম নারীদের বাসায় আসেন এবং দিন-রাত থাকেন। প্রায় এক সপ্তাহ তারা থাকেন এবং এসব আত্মীয়দের প্রতি ‘অনুভূতি জাগাতে’ মুসলিম নারীদের বলা হয়। চীনা সরকার তাদের এ কর্মসূচির নাম দিয়েছে ‘পেয়ার আপ অ্যান্ড বিকাম ফ্যামিলি’। ২০১৮ সালের শুরুর দিকে মুসলিম অধ্যুষিত প্রদেশে এ কর্মসূচি চালু করা হয়। চীন তাদের পশ্চিমাঞ্চলীয় অঞ্চলে ১০ লাখ মুসলিমকে বন্দী করে রেখেছে বলে অভিযোগ রয়েছে।

Agami Soft. - Inventory Management System

পাঠকের মতামত