পাকিস্তানে ট্রেনে আগুন, নিহতের সংখ্যা বেড়ে ৭৩

পাকিস্তানে চলন্ত ট্রেনে গ্যাস সিলিন্ডারে বিস্ফোরণে নিহতের সংখ্যা বেড়ে ৭৩ জন হয়েছে। আজ বৃহস্পতিবার করাচি থেকে রাওয়ালপিন্ডিগামী চলন্ত ট্রেনে রান্নার জন্য ব্যবহৃত গ্যাস সিলিন্ডার বিস্ফোরণের ঘটনায় এ হতাহতের ঘটনা ঘটে। পাঞ্জাব প্রদেশের দক্ষিণে রহিম ইয়ার খান জেলায় এ দুর্ঘটনা ঘটে বলে স্থানীয় গণমাধ্যম জানিয়েছে।

দেশটির জেলা পুলিশ কর্মকর্তা আমির তৈমুর খান বলেন – তেজগাম এক্সপ্রেসের তিনটি বগিতে আগুন লেগেছে। এখন পর্যন্ত ৭৩ জনের মৃত্যুর খবর নিশ্চিত হওয়া গেছে। নিহতের সংখ্যা আরও বাড়তে পারে।

পাকিস্তানের রেলমন্ত্রী শেখ রশিদ আহমদ জিও টিভিকে জানান, এঘটনায় নিহতের সংখ্যা বেড়ে ৬৫ জনে পৌঁছেছে। আরও অন্তত ৩০ জন আহত হয়েছে, যারা বিভিন্ন হাসপাতালে ভর্তি আছেন। করাচি থেকে রাওয়ালপিন্ডি যাওয়ার পথে লিয়াকতপুর শহরের কাছে তেজগাম নামে ট্রেনটিতে বিস্ফোরণ ঘটে। এতে ট্রেনের তিনটি বগি পুড়ে যায়।

রেলমন্ত্রী ডনকে বলেন – হতাহতদের মধ্যে তাবলিগ জামাতের লোকরা ছিলেন, যারা রাইওয়ান্দ যাচ্ছিলেন। তারা সকালের নাস্তার তৈরির সময় সিলিন্ডার বিস্ফোরিত হয়। হতাহতদের মধ্যে নারী, শিশুও আছে। তবে কারোরই পরিচয় নিশ্চিত হওয়া যায়নি। রেল কর্মকর্তা নাবিলা আসলাম বলেন – ট্রেনে গ্যাস সিলিন্ডার নিয়ে উঠা নিষেধ আছে। যাত্রীরা নিশ্চয় সিলিন্ডার কাপড়ের ভেতরে লুকিয়ে নিয়ে ট্রেনে উঠেছিল।

পাকিস্তানের সংবাদমাদ্যম ডন এর খবরে বলা হয় – আগুনে ট্রেনের তিনটি বগি পুড়ে ছাই হয়ে গেছে। এ সময় প্রাণে বাঁচতে অনেক যাত্রী চলন্ত ট্রেন থেকেই লাফ দেন। দমকল ও উদ্ধারকর্মীদের দল ঘটনাস্থলে গিয়ে আগুন নিয়ন্ত্রণে এনে আহতদের উদ্ধার করে। ট্রেন থেকে লাফিয়ে পড়তে গিয়ে বেশিরভাগের মৃত্যু হয়েছে বলে এর আগে জিও টিভিকে জানান রেলমন্ত্রী।

এ দুর্ঘটনায় পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান শোক প্রকাশ করে নিহতের পরিবারদের সমবেদনা জানিয়েছেন। আহতদের সর্বোচ্চ চিকিৎসাসেবা দেওয়ার নির্দেশ দিয়েছেন তিনি।

Agami Soft. - Inventory Management System

পাঠকের মতামত