বাংলাদেশ ভারত সফর না করলে ভারতেরই লাভ!

বেতন বাড়ানো, কোয়াবের শীর্ষ কর্মকর্তাদের পদত্যাগসহ ১১ দফা দাবি নিয়ে ধর্মঘটে নেমেছে বাংলাদেশ ক্রিকেট দল। তাদের  সাথে সঙ্গ দিয়েছে জাতীয় লীগের খেলোয়াড়রাও। ক্রিকেটারদের একটাই কথা এই দাবিগুলো মেনে না নিলে মাঠে খেলতে নামবে না কোনো খেলোয়াড়।

ক্রিকেটারদের ডাকা এই ধর্মঘটের ফলে বাংলাদেশ দলের ভারত সফর নিয়ে আশঙ্কা দেখা দিয়েছে। এখন টাইগারদের দাবি যদি বিসিবি মেনে না নেয় অথবা সাকিবরা ধর্মঘট তুলে না নেয়, তাহলে ভারত সফর বাতিল হতে পারে। কিন্তু লাভ ভারতেরই হবে।

বাংলাদেশ দল ভারত সফর দিয়ে টেস্ট চ্যাম্পিয়নশীপে অংশ নিবে। যদি এই সফরে সাকিব-তামিমরা না আসে, তাহলে কোনো ম্যাচ না খেলেই জিতে যাবে বিরাট কোহলিরা। সেক্ষেত্রে তারা পাবে পুরো ১২০ পয়েন্ট।

এদিকে, গতকাল এক প্রেস ব্রিফিংয়ে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন জানান, খেলোয়াড়রা আন্দোলন না করে বিষয়গুলো বোর্ডকে জানাতে পারতো। তাদের সব দাবি বোর্ড এমনিতেই মেনে নিতো।

তিনি বলেন – আপনারাই অনেকবার আমাকে বলেছেন, পাপন ভাই এতকিছু করলেন ভারতে একটা সিরিজের ব্যবস্থা করেন। আমরা এত কষ্ট করে ভারতে একটা পূর্নাঙ্গ সিরিজের ব্যবস্থা করলাম। তাছাড়া এই সফরে দুটি টেস্ট ম্যাচ হবে, যা আইসিসির টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের অন্তর্ভূক্ত। অথচ এখন এই আন্দোলন!

এদিকে, বাংলাদেশের এই সমস্যা নিয়ে কথা বলেছেন ভারত ক্রিকেট কন্ট্রোল বোর্ড (বিসিসিআই)। তাদের বিশ্বাস সমস্যা যাই হোক বাংলাদেশ দল ভারতে খেলতে আসবে। সাকিবদের ভারত সফর নিয়ে বিসিসিআইয়ের এক সিনিয়র কর্মকর্তা ভারতীয় সংবাদ মাধ্যমে বলেছেন – টাইগারদের বিষয়টি ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ড নজরে রেখেছে। এটা বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের অভ্যন্তরীণ বিষয়। আমরা সব শুনেছি। কিন্তু এখনই কোনও মন্তব্য করার প্রয়োজন মনে করছি না।

বিসিসিআইয়ের সিনিয়র আরেক কর্মকর্তার বলেছেন – সাকিবদের সঙ্গে কোহলিদের কলকাতায় টেস্ট রয়েছে। যা নিয়ে উৎসাহ রয়েছে বাংলাদেশি সমর্থকদের মধ্যে। ঢাকা থেকে অনেক সমর্থক কলকাতায় আসার প্রস্তুতি নিচ্ছেন। আশা করছি বিসিবি সভাপতির অনুরোধে ক্রিকেটাররা খেলতে চলে আসবেন।

প্রসঙ্গত, ৩ নভেম্বর দিল্লিতে শুরু হতে বাংলাদে বনাম ভারতের মধ্যকার তিন ম্যাচের টি-টোয়েন্টি সিরিজ। এরপর হবে দুই ম্যাচের টেস্ট সিরিজ।

Agami Soft. - Inventory Management System

পাঠকের মতামত