সৌদি-ইরানের মধ্যস্থতা হচ্ছে ইসলামাবাদে?

বর্তমানে আন্তর্জাতিক মহলে সবথেকে বড় আলোচনার বিষয় সৌদি আরব এবং ইরানের মধ্যে বৈরীতা। এ নিয়ে দুদেশের মধ্যে কয়েক দফা বাক-বিতণ্ডাও হয়ে গেল। কিন্তু কোনভাবেই কমছে না তাদের মধ্যে দুরত্ব। তবে এই সম্পর্ক নিয়ে একটি আশার আলো দেখা দিয়েছে।

পাকিস্তানের প্রেসিডেন্ট ইমরান খান সৌদি আরব এবং ইরানের মধ্যে চলমান উত্তেজনা কমানোর সেতু হিসেবে কাজ করতে আগ্রহ প্রকাশ করেছেন। তিনি দু’দেশের প্রধানকে সরাসরি আলোচনায় বসাস্রা প্রস্তাব দেন। এমনকি সৌদি আরব এবং ইরানকে পাকিস্তানের রাজধানী ইসলামাবাদে মুখোমুখি বৈঠকে বসার ব্যবস্থা করতেও আগ্রহ প্রকাশ করেন ইমরান।

এক্সপ্রেস ট্রিবিউন এক প্রতিবেদনে জানায়, গত রোববার ইমরান খান তেহরান সফরে ইরানি প্রেসিডেন্টের সঙ্গে বৈঠকে সৌদি আরবের সঙ্গে সরাসরি আলোচনার প্রস্তাব দেন। এ নিয়ে সৌদি-ইরান আলোচনা ইস্যুতে সম্পৃক্ত পাকিস্তানের দুজন সরকারি কর্মকর্তা জানান, সৌদি আরব এবং ইরান দুই মুসলিম দেশের মধ্যে কোনো রকমের সংঘাত থাকুক পাকিস্তান তা চায় না ।

তেহরান এবং রিয়াদের মধ্যে চলমান সামরিক ও কূটনৈতিক উত্তেজনা নিরসনে শুধুমাত্র সংলাপে মধ্যস্থতা নয় বরং সৌদি আরব এবং ইরানকে পাকিস্তানের রাজধানী ইসলামাবাদে মুখোমুখি বৈঠকে বসার ব্যবস্থা করতেও প্রস্তুত রয়েছে। গত রোববার পাক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের সঙ্গে পাকিস্তানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী শাহ মাহমুদ কোরেশি, বিশেষ উপদেষ্টা জুলফিকার বোখারি এবং আন্তঃবাহিনী গোয়েন্দা সংস্থার প্রধান লেফটেন্যান্ট জেনারেল ফাইয়াজ হামিদও ইরান সফর করেন।

ওই দুই সরকারি কর্মকর্তা আরো জানান, ইরান সৌদি আরবের সঙ্গে বৈঠকে যেতে আগ্রহ প্রকাশ করেছে। কিন্তু এর আগে কিছু শর্ত রেখেছে ইরান। বৈঠক শেষে ইরানের প্রেসিডেন্ট হাসান রুহানি ও ইমরান খান যৌথ সংবাদ সম্মেলন করেন।

সংবাদ সম্মেলনে হাসান রুহানি বলেন – যেকোনো সদিচ্ছাকে ইরান স্বাগত জানায়। প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের সঙ্গে বৈঠকে আমরা একমত হয়েছি যে, আঞ্চলিক ইস্যুগুলো কূটনীতি এবং সংলাপের মাধ্যমে সমাধান হওয়া উচিত।

একই প্রস্তাব নিয়ে মঙ্গলবার সৌদি যুবরাজ মোহাম্মদ বিন সালমানের সঙ্গেও রিয়াদে বৈঠক করবেন ইমরান খান। সেখানে তিনি একই প্রস্তাব দেবেন বলে পাকিস্তানের কর্মকর্তারা জানিয়েছেন। ২০১৫ সালে সৌদি আরবের নেতৃত্বাধীন সামরিক জোট ইয়েমেনে হামলা চালালে তেহরান ও রিয়াদের উত্তেজনা শুরু হয়। সেপ্টেম্বরে সৌদি আরবের তেলক্ষেত্রে হামলার পর দুই দেশের উত্তেজনা তুঙ্গে ওঠে।

ওই মাসে অনুষ্ঠিত জাতিসংঘের সাধারণ অধিবেশনের পার্শ্ববৈঠকে ইরান-সৌদি বিরোধ নিরসনে মধ্যস্থতার প্রস্তাব দেন পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী।

Agami Soft. - Inventory Management System

পাঠকের মতামত