রাজধানীর মিরপুরে কিশোরীকে ছয়দিন ধরে গণধর্ষণ

রাজধানীর মিরপুর-১১ তে গণধর্ষণের ঘটনা ঘটেছে। পলাশ নগর এলাকার চার নম্বর গেট সংলগ্ন একটি খালি প্লটের ভেতরে জালি ব্যাগ তৈরির কারখানার এক কিশোরী শ্রমিককে ছয়দিন ধরে আটকে রেখে আট বখাটে মিলে ধর্ষণ করে বলে জানা যায়।

এ ঘটনায় গত শুক্রবার (১১ অক্টোবর) দিবাগত রাত দুইটা ৫ মিনিটে ভুক্তভোগী কিশোরীর ভাই সিয়াম হোসেন বাদী হয়ে পল্লবী থানায় একটি ধর্ষণ মামলা করেন। সিয়াম গণমাধ্যমকে বলেন – আসামি আমজাদ হোসেন একই এলাকায় বসবাস করার সুবাদে আমার বোনের সঙ্গে পরিচয়। রবিবার (৬ অক্টোবর) সন্ধ্যায় কারখানা ছুটি হলে আমজাদ আমার বোনকে কারখানার সামনে দেখে কথা আছে বলে পলাশ নগর চার নম্বর গেট সংলগ্ন খালি প্লটের দেওয়ালের পাশে ডেকে নিয়ে যায়।

সিয়াম আরো বলেন – সে সময় আশপাশে কোনো লোকজন না থাকায় বখাটেরা জোরপূর্বক আমার বোনকে কোলে তুলে সেই প্লটের ভেতরে নিয়ে যায়। বিভিন্ন প্রকার ভয়-ভীতি দেখিয়ে আসামি ইমরান আমার বোনকে জড়িয়ে ধরে মাটিতে ফেলে দেয়। আমার বোনকে ধর্ষণ করে। পরে পালাক্রমে রবিন ও খোকনও ধর্ষণ করে।

এরপর বখাটে ধর্ষকরা মেয়েটিকে বিজয় পল্লবীর একটি নির্মাণাধীন বাড়িতে নিয়ে যায়। সেখানে সোমবার (৭ অক্টোবর) থেকে বিকাল তিনটা পর্যন্ত আসামি সোহেল ও জয় আমার বোনকে  মাদক সেবন করিয়ে পালাক্রমে ধর্ষণ করে। সেদিনই আমার বোন বাসায় ফিরে এসে আমাদের সব ঘটনা জানায়।

এ ব্যাপারে পল্লবী থানার ইন্সপেক্টর (তদন্ত কর্মকর্তা) মোহাম্মদ আবদুল মাবুদ বলেন – এই গণধর্ষণের এর ঘটনায় তিনজনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। গ্রেফতারকৃত তিনজন হলো- ইমরান (১৯), খোকন মিয়া (২০) ও বিজয় (১৮)।

তিনি আরও বলেন – ওসি আমাকে তদন্তের ভার  দিয়েছেন। আমি ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছি। এ ঘটনায় আট জনকে আসামী করে পল্লবী থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে। ভিকটিমের ভাষ্য অনুযায়ী  ছয় দিন যাবত আট জন মিলে তাকে পালাক্রমে ধর্ষণ করেছে। বাকি আসামিদের ধরতে আমাদের চিরুনি অভিযান অব্যাহত রয়েছে।

Agami Soft. - Inventory Management System

পাঠকের মতামত