বুয়েটে শিক্ষক রাজনীতি নিষিদ্ধ ঘোষণা!

বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ে (বুয়েট) বন্ধ করা হয়েছে শিক্ষক রাজনীতি! আজ বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক সমিতি এক জরুরি বৈঠকে এ সিদ্ধান্ত নেন। বৈঠকে আরো বলা হয়েছে, খুব শিঘ্রই বন্ধ করা হবে ছাত্র রাজনীতিও।

আবরার ফাহাদ হত্যার ঘটনায় উত্তাল হয়ে আছে বুয়েট চত্ত্বর। সকাল থেকে টানা আন্দোলন করছে শিক্ষার্থীরা। আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের সামনে এই ঘোষণাটি দেন শিক্ষক সমিতির সভাপতি ড. একেএম মাসুদ। তিনি শিক্ষার্থীদের উদ্দেশ্যে বলেন – বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকদের রাজনীতি নিষিদ্ধ করার সিদ্ধান্ত নিয়েছি আমরা। শিক্ষার্থীদের রাজনীতিও শিগগিরই নিষিদ্ধ করা হবে। সকাল ১০টায় সমিতির এক জরুরি বৈঠকে এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয় বলেও জানান তিনি।

এদিকে আবরার যে কোন রাজনৈতিক দলের সঙ্গে যুক্ত ছিল না সেটি নিশ্চিত করেছে তার পরিবারসহ সংশ্লিষ্টরা। হত্যাকাণ্ডের প্রমাণ না রাখতে সিসিটিভি ফুটেজ মুছে (ডিলেট) দেয় খুনিরা। তবে পুলিশের আইসিটি বিশেষজ্ঞরা তা উদ্ধারে সক্ষম হন। পুলিশ ও চিকিৎসকরা আবরারকে পিটিয়ে হত্যার প্রমাণ পেয়েছেন।

এ ঘটনায় বুয়েট শাখা ছাত্রলীগের সহসভাপতি মুহতাসিম ফুয়াদ ও সাধারণ সম্পাদক মেহেদী হাসান রাসেলসহ ১৩ জনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। তবে এ ঘটনায় ১৪ জন জড়িত বলে জানিয়েছেন ডিএমপির অতিরিক্ত কমিশনার (অপরাধ) কৃষ্ণপদ রায়।

এ ঘটনায় ১৯ জনকে আসামি করে তার বাবা চকবাজার থানায় সোমবার রাতে একটি হত্যা মামলা করেন। বুয়েট কর্তৃপক্ষ একটি সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করেছে। পাশাপাশি গঠন করেছে একটি তদন্ত কমিটিও। এদিকে ঘটনার সঙ্গে জড়িত থাকার প্রমাণ মেলায় বুয়েট শাখার সহসভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকসহ ১১ জনকে ছাত্রলীগ থেকে স্থায়ীভাবে বহিষ্কার করা হয়েছে।

Agami Soft. - Inventory Management System

পাঠকের মতামত