বুয়েটের আবরার হত্যাকারী সন্দেহে গ্রেফতার ২

নিহত আবরার ফাহাদ। (সংগৃহীত ছবি)

রবিবার দিবাগত রাতে বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুয়েট) শেরে বাংলা হল থেকে আবরার ফাহাদ (২১) নামের এক ছাত্রের মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ। মরদেহের গায়ে আঘাতের চিহ্ন দেখে এটি একটি হত্যাকাণ্ড বলে সন্দেহ করেছে পুলিশ।

আবরার হত্যাকাণ্ডের সঙ্গে জড়িত সন্দেহে দুজন বুয়েট শিক্ষার্থীকে আটক করেছে পুলিশ। আটকৃতরা হলেন- ফুয়াদ ও রাসেল। গ্রেফতারের তথ্যটি নিশ্চিত করে চকবাজার থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) গণমাধ্যমকে জানান, জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ফুয়াদ ও রাসেলকে আটক করে থানায় নিয়ে আসা হয়েছে।

উল্লেখ্য, রোববার দিবাগত রাত ৩টার দিকে শেরে বাংলা হলের সিঁড়ি থেকে ফাহাদের মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছিল। বুয়েটের চিকিৎসক মাসুক এলাহী জানান, অন্য ছাত্রদের মাধ্যমে খবর পেয়ে শেরে বাংলা হলের প্রথমতলা ও দ্বিতীয়তলার মাঝামাঝি জায়গায় ফাহাদের নিথর দেহ পড়ে থাকতে দেখেন। তার শরীরে অনেকগুলো আঘাতের চিহ্ন দেখা গেছে।

তিনি জানান, রাত্রিকালীন ডিউটিতে ছিলেন। খবর পেয়ে শেরে বাংলা হলে গিয়ে ফাহাদকে অচেতন অবস্থায় পড়ে থাকতে দেখে নিজে পরীক্ষা করে দেখেন, তিনি মারা গেছেন। পরে বুয়েট কর্তৃপক্ষ ও পুলিশকে বিষয়টি জানানো হয়।

চকুবাজার থানার ওসি জানান, ময়নাতদন্ত প্রতিবেদন পাওয়ার পর তার মৃত্যুর বিষয়ে আরও ধারণা পাওয়া যাবে। এ বিষয়ে বিস্তারিত জানার চেষ্টা চলছে।

এদিকে ফাহাদের সহপাঠীরা অভিযোগ করে বলেন – রোববার রাত আটটার দিকে শেরে বাংলা হলের ১০১১ নম্বর কক্ষ থেকে কয়েকজন আবরারকে ডেকে নিয়ে যায়। এরপর রাত দুইটা পর্যন্ত তাকে খুঁজে পাওয়া যায়নি। তাদের ধারণা, ২০১১ নম্বর রুমে নিয়ে তাকে পিটানো হয়।

আবরার ফাহাদ বুয়েটের ইলেকট্রিক্যাল অ্যান্ড ইলেকট্রনিক ইঞ্জিনিয়ারিংয়ের (ইইই) বিভাগের দ্বিতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী ছিলেন। শেরে বাংলা হলের ১০১১ নম্বর কক্ষে থাকতেন তিনি। তার বাড়ি কুষ্টিয়া শহরে।

Agami Soft. - Inventory Management System

পাঠকের মতামত