১০০ বলের ক্রিকেটে বাংলাদেশের ছয় ক্রিকেটার!

বিশ্বে ক্রিকেটের আবির্ভাব হয়েছিল টেস্ট ম্যাচ দিয়ে। ১৮৭৭ সালের ১৯ মার্চ অস্ট্রেলিয়ার মেলবোর্নে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে ইংল্যান্ডের প্রথম অফিসিয়াল টেস্ট ম্যাচ অনুষ্ঠিত হয়েছিল। এরপর ক্রিকেটকে আরো সংক্ষিপ্ত করে ফেলে আইসিসি। তাই ক্রিকেটকে একদিনের খেলায় নিয়ে আসা হয়েছিল।

ক্রিকেট হয়ে গেল ৩৬০ বলের বা ৬০ ওভারের! ৬০ ওভারে ১৯৭৫, ১৯৭৯ এবং ১৯৮৩ সালের প্রথম তিনটি বিশ্বকাপই হল ৬০ ওভারে। কিন্তু এরপর ক্রিকেটকে আরো সংক্ষিপ্ত করতে তৈরি হল ৫০ ওভারের ম্যাচ! চতুর্থ বিশ্বকাপ থেকে আজ পর্যন্ত এই ৫০ ওভারেই খেলা চলে আসছে।

কিন্তু ২০০৫ সালের ১৭ ফেব্রুয়ারি অস্ট্রেলিয়া এবং নিউজিল্যান্ড নিয়ে এল টি২০ ক্রিকেট ম্যাচ! বর্তমানে সবথেকে জনপ্রিয় এই ক্রিকেট ফরম্যাট। যেখানে প্রতি বলে থাকে উত্তেজনা। ব্যাটসম্যানদের জন্য মূলত এই ফরম্যাট জনপ্রিয়। চার-ছক্কার বন্যা বয়ে যায় এই ফরম্যাটে।

এরপর ২০১৮ সালে পাকিস্তানে চালু টি১০ লীগ। যেখানে ২০ ওভার থেকে ক্রিকেট নেমে আসে ১০ ওভারে। ৯০ মিনিটের এই খেলাও কম জনপ্রিয়তা পায়নি। যদিও আন্তর্জাতিক ক্রিকেট কাউন্সিল (আইসিসি) এটিকে এখনো আন্তর্জাতিক ফরম্যাট হিসেবে ঘোষণা দেয়নি।

কিন্তু এবার আইসিসি নিয়ে এল ১০০ বল ক্রিকেট! যেখানে ১০০ বলের মধ্যে কারিশমা দেখাতে হবে ক্রিকেটারদের। আর তার জন্য দলও তৈরি হয়ে গেছে। ইংল্যান্ডে এই নতুন সংস্করণের ক্রিকেটে খেলতে দেখা যেতে পারে বাংলাদেশের ৫ ক্রিকেটারকে।

‘দ্য হানড্রেড’- এর ড্রাফটে বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসান খেলবেন সেটা অনেক আগেই জেনে গেছেন সাকিব ভক্তরা। এবার সাকিবের সাথে যোগ দিবে আরো ৫ টাইগার। তারা হলেন- তামিম ইকবাল, মুশফিকুর রহিম, মোহাম্মদ মিথুন, মোহাম্মদ সাইফউদ্দিন ও মুস্তাফিজুর রহমান।

সব মিলে ‘দ্য হানড্রেড’ টুর্নামেন্টের ড্রাফটে বাংলাদেশের ক্রিকেটারের সংখ্যা ছয়। আফগানিস্তান থেকেও ছয় ক্রিকেটারকে রাখা হয়েছে এই তালিকায়। আছে আয়ারল্যান্ড ও নেপালের ক্রিকেটারও। আট দলের এই টুর্নামেন্টের ড্রাফটে রাখা হয়েছে ১১ দেশের মোট ১৬৫ জন ক্রিকেটারকে।

দ্য হানড্রেডে একই ক্যাটাগরিতে আছেন বাংলাদেশের সাকিব এবং তামিম। প্লেয়ার ড্রাফটের  দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ভিত্তি মূল্য অর্থ্যাৎ ১ লাখ পাউন্ড (১ কোটি ৪ লাখ বাংলাদেশি মুদ্রা) পাবেন তারা দুইজন। এই ক্যাটাগরিতে সাকিব-তামিমের সাথে আছেন আরো ১৫ ক্রিকেটার। তাদের মধ্যে কাইরন পোলার্ড, রশিদ খান, শহীদ আফ্রিদি, গ্লেন ম্যাক্সওয়েল, আন্দ্রে রাসেল, সন্দ্বীপ পাতিল, হরভজন সিং, ডোয়াইন ব্রাভো ও সুনীল নারাইন অন্যতম।

শীর্ষ তালিকায় রয়েছেন আট বিদেশি ক্রিকেটার। তারা হচ্ছেন- স্টিভ স্মিথ, মিচেল স্টার্ক, ডেভিড ওয়ার্নার, কুইন্টন ডি কক, লুঙ্গি এনগিদি, কাগিসো রাবাদা, লাসিথ মালিঙ্গা ও ক্রিস গেইল। ১০০ বলের ক্রিকেটের এই সর্বোচ্চ স্তরের ভিত্তি মূল্য ১ লাখ ২৫ হাজার পাউন্ড।

ড্রাফটে থাকা ১৬৫ জন বিদেশি ক্রিকেটারের মধ্যে ৬৭ জনের ভিত্তি মূল্য নির্ধারণ করা হয়নি। তবে তারা দল পেলে সর্বনিম্ন ভিত্তি মূল্য ৩০ হাজার পাউন্ড (৩১ লাখ ৩১ হাজার টাকা) পাবেন। সব মিলে সাতটি ক্যাটাগড়ি করা হয়েছে। ১ লাখ ২৫ হাজার পাউন্ড, ১ লাখ পাউন্ড, ৭৫ হাজার পাউন্ড, ৬০ হাজার পাউন্ড, ৫০ হাজার পাউন্ড, ৪০ হাজার পাউন্ড ও ৩০ হাজার পাউন্ড। বিদেশি ক্রিকেটারদের নিলাম হবে আগামী ২০ অক্টোবর। টুর্নামেন্ট শুরু হবে আগামী বছরের জুলাই থেকে।

টুর্নামেন্টে ভারত থেকে খেলবেন কেবলমাত্র হরভজন সিং। বিরাট কোহলি, রোহিত শর্মা, জাসপ্রিত বুমরাহর মতো টি-২০ সুপারস্টাররা খেলতে পারবেন না। কারণ ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ড তাদের বর্তমান জাতীয় দলের ক্রিকেটারদের বাইরের দেশের কোনো ঘরোয়া লিগে খেলার ব্যাপারে এনওসি (নো অবজেকশন সার্টিফিকেট) দেয় না। তবে যেহেতু হরভজন জাতীয় দলে এখন নিয়মিত সদস্য নন, তাই ড্রাফটে তাকে রাখা হয়েছে। কিন্তু এই টুর্নামেন্টে খেলতে চাইলে তাকে আনুষ্ঠানিকভাবে জাতীয় দল থেকে অবসরের ঘোষণা দিতে হতে পারে!

টি-২০র গ্লোবাল স্টার দক্ষিণ আফ্রিকার এবি ডি ভিলিয়ার্সের খেলার সম্ভাবনাও কম। যদিও এই প্রোটিয়া তারকা ‘দ্য হানড্রেড’-এ খেলার ব্যাপারে আগ্রহ প্রকাশ করেছিলেন আগেই। কিন্তু বিগ-ব্যাশের সঙ্গে এই টুর্নামেন্টের সিডিউল ঝামেলার কারণে কিন্তু খেলতে পাচ্ছেন না। ভিলিয়ার্স বিগ-ব্যাশে ব্রিসবেন হিটের হয়ে খেলবেন।

টি-২০তে সেরা ক্রিকেটারদেরই রাখা হয়েছে ড্রাফটে। পাশাপাশি দর্শকের বিষয়টিও মাথায় রেখে ইংল্যান্ড অ্যান্ড ওয়েলস ক্রিকেট বোর্ড। গত বিশ্বকাপের সময় দেখা গেছে, বাংলাদেশ ও আফগানিস্তানের ম্যাচে দর্শক ছিল চোখে পড়ার মতো। সে কারণেই দুই দেশ থেকেই ছয়জন করে ক্রিকেটার নেওয়া হয়েছে। কিন্তু সবাই দল পাবে কিনা তা নিয়েও সংশয় আছে। কেন না প্রতিটি দল তাদের স্কোয়াডে ও একাদশে সর্বোচ্চ তিনজন বিদেশি ক্রিকেটার রাখতে পারবে।

Agami Soft. - Inventory Management System

পাঠকের মতামত