ইরান-সৌদি উত্তেজনায় চীন-রাশিয়ার কান্ড!

কিছুদিন আগে সৌদি আরবের দুটি তেলের খনিতে হামলা চালায় শত্রুপক্ষ। এর প্রতিশোধ নেওয়া হবে বলে জানিয়েও দিয়েছে সৌদি আরব। তাই দেশটিতে অস্ত্র ও সামরিক সরঞ্জাম পাঠানো শুরু করে দিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। তবে সৌদি আরবের পাশাপাশি সংযুক্ত আরব আমিরাতেও সেনা পাঠানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে ওয়াশিংটন।

এই চলমান উত্তেজনার মধ্যে নতুন করে তেল ঢাললো ইরান এবং চীন। দুই দেশই ঘোষণা দিয়েছে নৌমহড়া দেওয়ার। ইরানের সামরিক বাহিনীর চিফ অব স্টাফের আন্তর্জাতিক ও কূটনৈতিকবিষয়ক প্রধান ব্রিগেডিয়ার জেনারেল কাদির নেজামী শনিবার যৌথ মহড়ার ঘোষণা দিয়ে বলেন – তিন দেশের নৌবাহিনী ভারত মহাসাগর এবং ওমান সাগরের আন্তর্জাতিক পানিসীমায় যৌথ মহড়া চালাবে।

এদিকে, মার্কিন প্রতিরক্ষামন্ত্রীর দাবি, সৌদি আরব এবং সংযুক্ত আরব আমিরাত তাদের কাছে সাহায্য চেয়েছে। তেল স্থাপনায় ড্রোন হামলার দায় স্বীকার করে ইয়েমেনে সৌদি জোটের সঙ্গে যুদ্ধরত হুতি বিদ্রোহীগোষ্ঠী।

তবে যুক্তরাষ্ট্র বলছে – হামলার নেপথ্যে আছে ইরান আর সৌদি দাবি করছে যে ড্রোন দিয়ে হামলা হয়েছে তা ইরানের তৈরি। বরাবরের মতো ইরান সৌদি ও যুক্তরাষ্ট্রের এমন অভিযোগ অস্বীকার করে আসছে। এদিকে শুক্রবার মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প ইরানের ওপর সর্বোচ্চ পর্যায়ের নিষেধাজ্ঞা আরোপের ঘোষণা দিয়েছেন।

Agami Soft. - Inventory Management System

পাঠকের মতামত