যে কারণে নিজের প্রথম ফিফটি উদযাপন করেননি আফিফ

গতকাল বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের রাত রাঙিয়েছে শুধু একজন তরুণ। মাত্র ১৯ বছর বয়সের ছেলে আফিফ হোসেন ধ্রুব। আন্তর্জাতিক ম্যাচে মাত্র দ্বিতীয় ম্যাচ খেলতে নেমেছিলেন তিনি। প্রথম ম্যাচটিও খেলেছেন প্রায় এক বছর আগে। সেই ম্যাচে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ২ বল খেলে রানের খাতাই খুলতে পারেননি তিনি।

কিন্তু এবার রীতিমত বিদ্ধংসীরূপে ধরা দিয়েছেন তিনি। জিম্বাবুয়ের দেওয়া ১৪৪ রানের মধ্যম টার্গেট পার করতে নেমে বাংলাদেশ যখন ৬০ রানে ৬ উইকেট হারায়, তখন গ্যালারী ছাড়া শুরু করে দিয়েছিলেন বাংলাদেশের দর্শকরা। পুরো মাঠে তখন শুধু জারভিস, আরভিন আর চাতারাদের উল্লাস শোনা যাচ্ছিল।

কিন্তু এরপরই যেন লন্ডভন্ড হয়ে গেল ম্যাচের দৃশ্যপট। ব্যাটিংয়ে আসলেন ১৯ বছরের আফিফ। তার সাথে অনেকটাই নতুন মোসাদ্দেক হোসেন সৈকত। সবাই ধরে নিল কতটুকুইবা করবে এই দুই ব্যাটসম্যান। যে ছয় ব্যাটসম্যানকে হারিয়েছে বাংলাদেশ সেখানে সবাই ছিল অভিজ্ঞ। সৌম্য, লিটন, মুশফিক, সাকিব, মাহমুদুল্লাহ এবং সাব্বির! ছক্কা মারা ব্যাটসম্যানতো এই ছয়জন।

হঠাৎই কোন ট্রেইলার না দেখিয়ে সরাসরি ক্লাইমেক্সেই সিনেমা শেষ! সপ্তম উইকেটে আফিফ এবং মোসাদ্দেকের ৪৭ বলে ৪২ রানের ঝড় টানা পাঁচ ম্যাচ হারের পর টাইগারদের জয় দেখালো। তবে এর প্রধান অবদান হচ্ছে আফিফ হোসেন। ৮ চার এবং ১ ছয়ে ২৬ বলে ৫২ রানে বাংলাদেশের জয়ের খরা মিটিয়েছে।

আফিফ হোসেন ধ্রুব, মাত্র ৬০ রানে ৬ উইকেট হারানোর চাপকে একেবারে বুড়ো আঙ্গুল দেখিয়ে তার সৌরভ ছড়ানো ব্যাটিং সবার নজর কাঁড়ে। মাত্র ২৪ বলে হাফ সেঞ্চুরি করেন ধ্রুব। যদিও ম্যাচটি শেষ করে দিয়ে মাঠ ছাড়তে পারেননি। এমনকি আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে নিজের প্রথম ফিফটি পর্যন্ত উদযাপন করেননি আফিফ।

Afif Hossain

ফিফটি উদযাপন কেন করেননি? এমন প্রশ্নের জবাবে সাংবাদিকদের আফিফ বলেন – কখন ফিফটি হয়েছে খেয়াল করিনি। তখন চিন্তায় ছিল ম্যাচ যেন শেষ করতে হবে। ভাবনা ছিল একবারে ম্যাচ শেষ করেই উদযাপন করব। ম্যাচটা শেষ করতে পারিনি, তার আগে আউট হয়ে গেছি। সবারই ইচ্ছে থাকে এমন ইনিংস খেলে দেশকে জেতানোর। আমার সেই ইচ্ছাটা পূরণ হয়েছে।

তবে বাংলাদেশের জন্য এই জয়টি খুবই গুরুত্বপূর্ণ ছিল। ম্যাচ শুরুর দিকে সেটিও মনে হয়েছিল। টস জিতে বোলিংয়ের সিদ্ধান্ত নিয়ে যে ভুল করেননি বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসান, সেটি বোলাররাই প্রমাণ করে দিলেন। ৬৫  রান তুলতেই জিম্বাবুয়ের প্রথম সারির পাঁচ ব্যাটসম্যান গায়েব!

আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে পাঁচ বছর আগে অভিষেক হলেও নিজের প্রথম ম্যাচ খেলতে নামা তাইজুল ইসলাম প্রথম ওভারের প্রথম বলে উইকেট তুলে নিয়ে গড়লেন বিশ্ব রেকর্ড। কিন্তু এরপর রায়ান বার্লের ৩২ বলে ৫৭ রান সবকিছু বদলে দেয়। কিন্তু শেষমেশ সাকিব আল হাসানকে আইডল মানা আফিফ বাংলাদেশকে জয়ের পথ করে দিয়ে আউট হন।

সাকিবের কাছে ম্যাচটি ছিল “অগ্নি পরীক্ষার” মত। দলকে জয়ের বৃত্তে আনতেই হবে। কিন্তু বোলিংয়ে ৪ ওভারে ৪৯ রান দিয়ে ব্যর্থ সাকিব। ব্যাটিংয়ে নেমে ২ রানে প্যাভিলিয়নে ফিরলেন বাংলাদেশের এই অধিনায়ক। ‘বড় সাকিব’ না পারলেও বাংলাদেশ দলের ‘ছোট্ট সাকিব’ ঠিকই জয়ের পথ দেখিয়ে দিয়েছেন।

সিরিজে বাংলাদেশের দ্বিতীয় ম্যাচ অনুষ্ঠিত হবে আগামীকাল সন্ধ্যা সাড়ে ৬টায়। ঢাকা শেরেবাংলা স্টেডিয়ামে তাদের বিপক্ষে মাঠে নামবে আফগানিস্তান। এদিকে, আজ সন্ধ্যাবেলা নিজেদের দ্বিতীয় ম্যাচে আফগানিস্তানের বিপক্ষে মাঠে নামবে জিম্বাবুয়ে।

Agami Soft. - Inventory Management System

পাঠকের মতামত