কুয়েতে দূতাবাসে পানি খেতে গিয়ে প্রবাসী নির্যাতিত

কুয়েতে বাংলাদেশ দূতাবাসে গিয়ে দূতাবাসের এক কর্মচারীর নির্যাতনের শিকার হয়েছেন প্রবাসী এক বাংলাদেশি শ্রমিক। গত ২ সেপ্টেম্বর গরমে অতিষ্ঠ হয়ে দূতাবাস ভবনের ভিতরে পানি খেতে যাওয়া ওই যুবককে ক্রমাগত ধমকানো, তার কাগজপত্র ও মোবাইল কেড়ে নিয়ে বের করে দেওয়া হয়। নির্যাতনের এই ভিডিও এখন সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ভাইরাল।

নির্যাতন করা পিয়ন পদমর্যাদার ওই কর্মচারী প্রতিদিনই দূতাবাসে আসা সেবাপ্রার্থীদের সঙ্গে বিরূপ আচরণ করেন বলে অভিযোগ করেছেন প্রবাসীরা। এর আগে, গত জানুয়ারিতে প্রবাসীদের স্বার্থ রক্ষার ক্ষেত্রে নিষ্ক্রিয়তার অভিযোগে প্রবাসী শ্রমিকরা কুয়েত দূতাবাসে ভাঙচুরও চালিয়েছিল।

সেবাপ্রার্থী এক প্রবাসীর ধারণ করা ভিডিওচিত্রে দেখা গেছে, কুয়েত দূতাবাসের নিচতলায় নামাজের স্থানের পাশে কাগজপত্র হাতে দাঁড়িয়ে থাকা এক প্রবাসীকে সেখানে প্রবেশের অপরাধে ধমকাচ্ছেন দূতাবাসের এক কর্মচারী। মুহূর্তেই তার হাতের কাগজপত্র কেড়ে নিয়ে বের হয়ে যেতে হুঙ্কার দিতে থাকেন সেই কর্মচারী। পরে কেড়ে নেন প্রবাসীর মোবাইল ফোন। ধাক্কা দিয়ে বের করে নিয়ে আসা হয় দূতাবাসের বারান্দায়।

সেখানে কয়েক দফায় মারতে উদ্যত হওয়া দূতাবাস কর্মচারী পরে তাকে ধরে নিয়ে যান দূতাবাসের নিচতলার আরেক কর্মকর্তার কক্ষে। সেখানে বিচাররত অবস্থায় শেষ হয় ভিডিও। গোপনে ভিডিও ধারণ করা প্রবাসী বাংলাদেশি বলেন – গরমে অতিষ্ঠ হয়ে পানি খেতে ভিতরে প্রবেশ করেছিলেন সেই যুবক।

যোগাযোগ করা হলে কুয়েতে বাংলাদেশ দূতাবাসের হেড অব চ্যান্সারি মো. আনিসুজ্জামান জানান, দূতাবাসের এক কর্মচারীর বিরুদ্ধে ওঠা এই অভিযোগ সম্পর্কে আমরা অবগত হয়েছি। তদন্ত শেষে তার বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

অপরদিকে, গত ২৮ আগস্ট ব্রুনাইয়ে বাংলাদেশি হাইমমিশনে এক প্রবাসীকে নির্যাতন করার অভিযোগ পাওয়া গেছে। এমনই একটি নির্যাতনের গোপনে ধারণ করা ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়েছে। এ বিষয়ে প্রররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে অভিযোগ করেছেন এক ভুক্তভোগী। যা দেখে বিষ্ময় প্রকাশ করেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী।

Agami Soft. - Inventory Management System

পাঠকের মতামত