বাবাকে আর ভাত খাওয়াতে পারলো না মেয়েটি

প্রতিদিনের মত গতকালও সাইকেলে করে কর্মজীবি বাবার জন্য দুপুরের খাবারটা নিয়ে যাচ্ছিলো মেয়েটি। বাবা ইসরাফিল হোসেন তেঁতুলিয়ার শালবাহান বাজারে একটি অ্যালুমিনিয়ামের দোকানে কাজ করেন।

কিন্তু সেদিন আর বাবার কাছে ভাত নিয়ে পৌঁছাতে পারলো না স্কুলছাত্রী সাদিয়া আক্তার। বাবার কাছে না গিয়ে চলে গেলেন পরপারে। সর্বনাশা ট্রাক পনের বছর বয়সি মেয়েটির গায়ের উপর দিয়ে চলে গেল। মুহুর্ত্বেই মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়লো সাদিয়া।

গতকাল শুক্রবার (৬ সেপ্টেম্বর) পঞ্চগড়ের তেঁতুলিয়া উপজেলার শালবাহান বাজারে এই দুর্ঘটনাটি ঘটে। নিহত সাদিয়া উপজেলার শালবাহান ইউনিয়নের যুগীগছ এলাকার ইসরাফিল হোসেনের মেয়ে। সে শালবাহান দ্বিমুখী বালিকা উচ্চবিদ্যালয়ের নবম শ্রেণির ছাত্রী ছিল।

এসময় বিক্ষুব্ধ জনতা ট্রাকটি আটক করে ট্রাকে আগুন লাগিয়ে দেয়। পরে তেঁতুলিয়া ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা এসে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনেন। এ সময় ট্রাকচালক কৃষ্ণ কান্ত রায়কে (২১) আটক করে পুলিশের হাতে তুলে দেন স্থানীয় লোকজন।

পুলিশ ও স্থানীয় লোকজন জানান, সাদিয়া সাইকেল চালিয়ে বাবার জন্য দুপুরের খাবার নিয়ে যাচ্ছিল। শালবাহান বাজারের অগ্রণী ব্যাংকের সামনে পৌঁছালে উল্টো দিক থেকে আসা বাংলাবান্ধাগামী একটি ট্রাক তাকে চাপা দেয়। এতে ঘটনাস্থলেই মারা যায় সে।

তেঁতুলিয়া মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) জহুরুল ইসলাম বলেন – ঘটনার পর স্থানীয় লোকজন উত্তেজিত হয়ে ট্রাকটিতে আগুন ধরিয়ে দেন। ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা ঘটনাস্থলে গিয়ে আগুন নেভান। ট্রাকচালককে আটক করা হয়েছে। ট্রাকটিও জব্দ করা হয়েছে। এ ঘটনায় মামলার প্রস্তুতি চলছে। আইনি প্রক্রিয়া শেষে স্কুলছাত্রীর মরদেহ তার পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হবে।

Agami Soft. - Inventory Management System

পাঠকের মতামত