কোটি কোটি ফেসবুক ব্যবহারকারীর নম্বর ফাঁস করে দিল ফেসবুক

আবারো কেলেঙ্কারিতে ফাঁসতে যাচ্ছে জনপ্রিয় সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুক। এবার ব্যবহারকারীদের মোবাইল নম্বর অনলাইনে ফাঁসের অভিযোগ এসেছে ফেসবুকের উপর। কোটি কোটি মোবাইল নম্বর এখন অনলাইনে পাওয়া যাচ্ছে কোন পাসওয়ার্ড ছাড়াই।

জানা যায়, ফেসিবুক অ্যাকাউন্টে দেওয়া মোবাইল নম্বরগুলো নিয়ে একটি ডাটাবেইজ তৈরি করা হয়েছে। পরবর্তিতে সেই ডাটাবেইজ অনলাইনে ছেড়ে দেওয়া হয়েছে। এখন এমন অবস্থা হয়েছে ওই ডাটাবেইজটি সহজেই মানুষ দেখতে পাচ্ছে এমনকি নম্বর নিয়ে নিতেও পাড়ছে।

এ নিয়ে প্রযুক্তিভিত্তিক ওয়েবসাইট টেকক্রাঞ্চ একটি প্রতিবেদন প্রকাশ করে। সম্প্রতি এক নিরাপত্তা গবেষক অনলাইনে ৪১ কোটি ৯০ লাখ ফেসবুক ব্যবহারকারীর ফোন নম্বরযুক্ত একটি ডেটাবেইস খুঁজে পান। ওই ডেটাবেইসে কোনো পাসওয়ার্ড দেওয়া নেই বলে নিরাপত্তা গবেষকদের বরাত দিয়ে জানায় টেকক্রাঞ্চ।

এর মধ্যে ১৩ কোটি ৩০ লাখ ফেসবুক ব্যবহারকারী যুক্তরাষ্ট্রের, ১ কোটি ৮০ লাখ যুক্তরাজ্যের। ওই তালিকায় বাংলাদেশের কোনো ব্যবহারকারী রয়েছেন কি না, তা জানা যায়নি।

তবে এ নিয়ে ফেসবুকের এক মুখপাত্র বলেন – ওই রেকর্ডে এক নম্বর একাধিকবার রয়েছে, তাই সংখ্যা অনেক বেশি মনে হচ্ছে। তাদের ধারণা, ২০ কোটি ফেসবুক ব্যবহারকারীর তথ্যের ওপর প্রভাব পড়েছে। তবে এসব ডেটা সেট পুরোনো। গত বছর ফেসবুক তাদের ফিচারের পরিবর্তন আনার আগের ঘটনা এটি। আগে ফেসবুকে কাউকে খুঁজতে ফোন নম্বর ব্যবহারের সুযোগ ছিল। ফেসবুক ওই সুবিধা বাতিল করেছে। ওই ডেটা সেট সরিয়ে ফেলা হয়েছে। ফেসবুকের কোনো অ্যাকাউন্ট হ্যাক করার প্রমাণ পাওয়া যায়নি।

ফেসবুক কর্তৃপক্ষ মনে করছে, যে বা যারা ওই ডেটা ফেসবুক থেকে সংগ্রহ করেছে, তারা ফেসবুকের ত্রুটিপূর্ণ ফিচারকে কাজে লাগিয়েছে। ২০১৮ সালের মার্চে কেমব্রিজ অ্যানালিটিকা কেলেঙ্কারির পরপরই এপ্রিল মাসে ওই সার্চ টুল বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। ফেসবুক ব্যবহারকারীদের তথ্য নিয়ে কে বা কারা এ ডেটাবেইস তৈরি করেছে এবং তা ছেড়েছে, ফেসবুক কর্তৃপক্ষ তা জানে না।

টেকক্রাঞ্চের নিরাপত্তা বিশ্লেষক সানইয়াম জেইন বলেন – যিনি এ ডেটাবেইসের সন্ধান পেয়েছেন, তিনিও এর উৎস বের করতে পারেননি। তারা ওয়েব হোস্টিং কোম্পানির সঙ্গে যোগাযোগ করলে তারা ওই ডেটাবেইস সরিয়ে ফেলে। প্রাইভেসি ও নিরাপত্তা গবেষকেরা সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যম ব্যবহারকারীদের অনলাইনে ফোন নম্বর দেওয়ার বিষয়ে সতর্ক করেন। অনলাইনে ফোন নম্বর ছড়িয়ে পড়লে স্প্যাম, নিপীড়ন, সিম সোয়াপিং বা ক্লোনিংয়ের মতো ঘটনা ঘটে।

নিরাপত্তা প্রশিক্ষণ প্রতিষ্ঠান লুসি সিকিউরিটির প্রধান নির্বাহী কলিন বাস্টেল বলেন – কোনো সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমে ফোন নম্বর দেওয়ার আগে ভাবুন। মনে রাখবেন, তারা গ্রাহকের তথ্য একসঙ্গে করে তা ব্যবসার কাজে লাগাবে।

উল্লেখ্য, গত সপ্তাহে টুইটারের প্রধান নির্বাহী জ্যাক ডরসির অ্যাকাউন্ট হ্যাক হয়ে যায়। সিম সোয়াপ করে তাঁর অ্যাকাউন্ট হাতিয়ে নেওয়ার পর তাতে আজেবাজে টুইট পোস্ট করে।

Agami Soft. - Inventory Management System

পাঠকের মতামত