পাটগ্রামের ‘তাহেরা বিদ্যাপীঠ’ স্কুলের নামে চলছে ষড়যন্ত্র

লালমনিরহাটের পাটগ্রাম পৌরসভায় তাহেরা বিদ্যাপীঠটি গত কয়েক দিন আগে স্কুল ম্যানেজিং কমিটি গঠন নিয়ে স্থানীয় আওয়ামী লীগের মধ্যে দারুণ অসন্তোষ দেখা দিয়েছে। এ নিয়ে দলের মধ্যে দু’টি ধারা সৃষ্টি হয়েছে।

নতুন কমিটিকে অবৈধ আখ্যা দিয়ে বিদ্যাপীঠের অন্যতম কর্ণধার প্রতিষ্ঠাতা সদস্য ও উপজেলা আওয়ামী লীগের তথ্য ও গবেষণা সম্পাদক সায়েদুল ইসলাম মিঠুর পাটগ্রাম পৌর সভার বাসভবনে এক লিখিত সংবাদ সম্মেলন করেন। সংবাদ সম্মেলনে কমিটি গঠনের প্রক্রিয়াকে অবৈধ এবং জবর দখলের সামিল আখ্যায়িত করে তিনি দাবি করেন।

১৯৬২ সালের প্রাইভেট স্কুল অর্ডিনেন্স অনুযায়ী আধুনিক এবং অসাম্প্রদায়িক প্রজন্ম তৈরির লক্ষ্যে ১৯৯০ সালে ফরিদুল জুলফিকার নাগিবের আর্থিক সহায়তায় তাহেরা বিদ্যাপীঠ প্রতিষ্ঠা করা হয়। প্রতিষ্ঠার পর থেকে এলাকার সার্বিক দিক বিবেচনায় নিয়ে কোনো প্রকার আর্থিক সুবিধা গ্রহণ না করে প্রতিষ্ঠাতা সদস্যরা গত ২৯ বছর থেকে বিদ্যালয়টি সুন্দরভাবে পরিচালনা করে আসছেন।

এর ধারাবাহিকতায় গত বছরের ডিসেম্বরে বিদ্যালয়টির প্রশাসক উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আনোয়ারুল ইসলাম নাজু মৃত্যু বরন করলে গঠনতন্ত্র মোতাবেক প্রতিষ্ঠাতা সদস্য ফেরদৌস আরা নার্গিসকে প্রশাসক ও সহকারী শিক্ষক আহসান-উল-হাবিবকে ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ নিয়োগ দেয়া হয়। এই নিয়োগ পেয়ে ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ ও শিক্ষক জাহাঙ্গীর আলম সাদ্দাম প্রতিষ্ঠাতা কমিটির বিরুদ্ধে বিদ্যালয়টি দখল করার চেষ্টা করেন।

ঈদ উপলক্ষে কয়েক দিন স্কুল বন্ধ থাকার সুযোগে গত ১০ আগস্ট তারা অবৈধভাবে একটি কমিটি গঠন করে সামাজিক মাধ্যমে পোস্ট দেন। সায়েদুল ইসলাম মিঠু লিখিত বক্তব্যে দাবি করে বলেন – গঠনতন্ত্র লঙ্ঘন করে গঠিত কমিটি সম্পূর্ণ অবৈধ। ফলে ক্ষমতার জোরে দখল করার চেষ্টা করা একটি ফৌজদারি অপরাধ। এ ব্যাপারে আমরা আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করব এবং ওই দুই শিক্ষককে বিধি মোতাবেক তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

অপর দিকে ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ ও সহকারী শিক্ষক মুঠোফোনের মাধ্যমে বার বার যোগাযোগ চেষ্টা করা হলে তিনি কোন উত্তর দেননি।

#তারেকুজ্জামান ফাইন, লালমনিরহাট প্রতিনিধি।

Agami Soft. - Inventory Management System

পাঠকের মতামত