যুক্তরাষ্ট্রের টেক্সাসে এক যুবকের হাতে ২০ জন খুন

যুক্তরাষ্ট্রে বন্দুকধারীর এলোপাতাড়ি গুলিবর্ষণে ২০ জন নিহত হওয়ার খবর পাওয়া গেছে। এছাড়াও এই ঘটনায় ২৬ জন আহত হয়েছে বলে জানিয়েছে বিবিসি। ঘটনাটি যুক্তরাষ্ট্রের টেক্সাসে একটি শপিংমলে ঘটে।

টেক্সাসের গভর্নর গ্রেগ অ্যাবট জানান, স্থানীয় সময় শনিবার সকাল ১১টার দিকে অঙ্গরাজ্যটির এল পাসো শহরের সিয়েলো ভিস্তা শপিং মলের ওয়ালমার্ট স্টোরে এ ঘটনা ঘটে। শহরটি মেক্সিকো সীমান্ত থেকে মাত্র কয়েক মাইল দূরে।

বিবিসির এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে – আহতদের স্থানীয় হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এ ঘটনায় জড়িত সন্দেহে ২১ বছর বয়সী প্যাট্রিক ক্রুসিয়াস নামের এক শেতাঙ্গকে আটক করেছে পুলিশ।

সিসিটিভি ফুটেজ দেখে পুলিশ প্রাথমিকভাবে ধারণা করছে, প্যাট্রিক ক্রুসিয়াস একাই এ হামলা চালিয়েছেন। ফুটেজে দেখা গেছে, গাঢ় কালো টি-শার্ট পরা এক যুবক কানে শব্দ নিরোধক যন্ত্র লাগিয়ে একটি অ্যাসল্ট রাইফেল হাতে নিরস্ত্র মানুষের দিকে এগিয়ে যাচ্ছেন।

সন্দেহভাজন প্যাট্রিক ক্রুসিয়াস ডালাস এলাকার অধিবাসী। পুলিশ বলছে, এ বিষয়ে আর কোনো হুমকি নেই বলে তারা মনে করছেন।

এ ঘটনায় সন্দেহভাজন কয়েকজনকে আটক করেছে পুলিশ। ঘটনাস্থলে সেনা, বিশেষ এজেন্ট, টেক্সাস রেঞ্জার, কৌশলগত দল এবং বিমান বাহিনী মোতায়েন করা হয়েছে।

শপিংমলে বন্দুকধারীর হামলার ঘটনার তাৎক্ষণিক প্রতিক্রিয়ায় যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প টুইটারে বলেছেন, ‘এল পাসোর ঘটনাটি অত্যন্ত দুঃখজনক। এতে অনেক প্রাণ ঝরেছে।’

ক্ষমতায় আসার পর ডোনাল্ড ট্রাম্প ‘মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র শ্বেতাঙ্গদের দেশ’ বলে একটি ধারণা প্রতিষ্ঠা করার চেষ্টা করছেন। তার এমন নীতির ফলে উগ্র শ্বেতাঙ্গ জাতীয়তাবাদীরা অ-শ্বেতাঙ্গদের বিরুদ্ধে হামলা চালাতে উসকানি পাচ্ছেন বলে বিশ্লেষকরা মনে করে থাকেন।

Agami Soft. - Inventory Management System

পাঠকের মতামত