ইবিতে বজ্রপাত প্রতিরোধী তাল বৃক্ষ রোপণ

ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ে  (ইবি) বার্ষিক বৃক্ষরোপণের অংশ হিসেবে বজ্রপাত প্রতিরোধী ও পরিবেশ বান্ধব তাল বৃক্ষ রোপণ করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার (১লা আগস্ট  ) সকাল ১১ টায় ইবি থানাধীন বৃক্ষপ্রেমিক বনায়ন সংঘ ‘রাখাল গাছি’ সংগঠনের উদ্যোগে বিশ্ববিদ্যালয়ের আই আই ই আর ইন্সটিটিউটের সহযোগিতায় বৃক্ষ রোপণ করা হয়েছে।

আইআইইআর ইন্সটিটিউটের পরিচালক প্রফেসর মেহের আলীর সঞ্চালনায় বৃক্ষরোপণ কর্মসূচিতে   উপস্থিত ছিলেন- বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর ড. রাশীদ আসকারী, উপ-উপাচার্য প্রফেসর ড.শাহিনুর রহমান, ট্রেজারার প্রফেসর ড. সেলিম তোহা, সাবেক প্রক্টর ও ইবি সিন্ডিকেট সদস্য প্রফেসর মাহবুবুর রহমান।

এছাড়াও উপস্থিত ছিলেন- ছাত্র উপদেষ্টা প্রফেসর ড. পরেশ চন্দ্র বর্মণ, তাল বিশেষজ্ঞ ইবির ফলিত পুষ্টি ও খাদ্য প্রযুক্তি বিভাগের সহকারী অধ্যাপক শেখ শাহীনুর রহমান, সহকারী প্রক্টর নাসিমুজ্জামান  বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি রবিউল ইসলাম পলাশ এবং সাধারণ সম্পাদক রাকিবুল ইসলাম রাকিব, ইলেকট্রনিক ও প্রিন্ট মিডিয়ার সাংবাদিক সহ বিভিন্ন ব্যক্তি বর্গ।

এ বিষয়ে উপাচার্য ড. রাশীদ আসকারী বলেন – আগষ্টের যে জাতীয় শোক, সেই শোককে জাতীয় শক্তিতে রূপান্তর করার প্রক্রিয়ার অংশ হিসেবে আমাদের ব্যাপক বনায়ন করতে হবে। প্রকৃতির হাত ধরেই প্রাকৃতিক দুর্যোগ মোকাবেলা করতে হবে।

তিনি বলেন – প্রাকৃতিক দুর্যোগ মোকাবেলায় তাল গাছ গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখে। তাই আমাদেরকে বেশি বেশি করে তাল গাছ লাগাতে হবে। তিনি বলেন, তাল গাছ সবাইকে বড় ও মহৎ হতে শিক্ষা দেয়।  যা স্বয়ং প্রধানমন্ত্রীর পরামর্শ কিংবা আদেশ। ইতোপূর্বে আমাদের বনায়ন ছিল ১৬% শতাংশ যা কমে ৩/৪% শতাংশে চলে আসছে যা বাংলাদেশে নেতিবাচক প্রভাব ফেলবে। তা দূর করার জন্য এই বনায়ন বা বৃক্ষরোপন।

এছাড়া তালগাল প্রাকৃতিক ভাবে বজ্র প্রতিরোধী করে যা আমাদের বিশ্ববিদ্যালয়কে বজ্র থেকে প্রতিরোধ করবে, আর এর অংশ হিসেবে বিশ্ববিদ্যালয়ের বাউন্ডারির চারপাশে নির্দিষ্ট দূরত্বে প্রায় ১০০০ হাজার  গাছ লাগানো হবে।

Agami Soft. - Inventory Management System

পাঠকের মতামত