মধ্যরাতে রাস্তায় নেমে জাবি ছাত্রীদের বিক্ষোভ

সংগৃহীত ছবি।

প্রভোস্টের অসদাচরণের প্রতিবাদে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে (জাবি) বঙ্গমাতা বেগম ফজিলাতুন্নেছা মুজিব হলের প্রভোস্টের পদত্যাগ দাবিতে বিক্ষোভ করেছে আবাসিক হলের ছাত্রীরা। সোমবার রাত ৯টার দিকে হলটির সামনের সড়কে এ বিক্ষোভ শুরু হয়। এতে হলটির ৪৩ থেকে ৪৬ বর্ষের বর্ষের প্রায় এক’শ ছাত্রী অংশ নেন। এসময় ছাত্রীরা হল প্রভোস্ট অধ্যাপক মোহা. মুজিবুর রহমানের পদত্যাগের দাবিতে বিভিন্ন স্লোগান দেন।

এদিকে রাত ১১টার দিকে হলের সিটের দাবিতে বিক্ষোভে নামে দ্বিতীয় বর্ষের (৪৮ ব্যাচ) শিক্ষার্থীরা। রাত ২টা পর্যন্ত (রাত ২টা) বিক্ষোভ চলছে। আন্দোলনরত এক ছাত্রী বলেন, আজ সিটের সুরাহা না হওয়া পর্যন্ত আমরা হলে ফিরবো না।

প্রথম দফার আন্দোলনরত ছাত্রীদের অভিযোগ, রাতে প্রভোস্ট ছাত্রীদেরকে ডাকেন। এ সময় তিনি অনিয়মিতদের (শুধুমাত্র শুক্রবার ও শনিবার হলে থাকেন না এমন ছাত্রীরাও) সিট বাতিল করা, সকল রুমে ৬ জন করে রাখা, রান্নাঘর বন্ধ করে সেখানে ছাত্রীদের আবাসনের ব্যবস্থা করা হবে বলে ছাত্রীদেরকে জানান।

এছাড়া কথা বলার এক পর্যায়ে তিনি ছাত্রীদেরকে পূর্বে যারা অন্য হলে ছিল তাদেরকে সেসব হলে চলে যেতে বলেন। এসময় ছাত্রীরা প্রভোস্টকে ডাইনিং চালু করা এবং ক্যান্টিনের খাবারের মান বৃদ্ধির দাবি জানালে তিনি অপ্রীতিকর মন্তব্য করেন। এসব অভিযোগ তুলে ছাত্রীরা হলের সামনের সড়কে অবস্থান নিয়ে প্রভোস্টের পদত্যাগসহ কয়েকটি দাবিতে বিক্ষোভ শুরু করেন।

ছাত্রীদের অন্য দাবিগুলো হল- কোন ছাত্রীর আসন বাতিল করা যাবেনা, প্রতি কক্ষে চারজনের বেশি রাখা যাবেনা, হলের প্রতিটি রান্নাঘর চালু রাখতে হবে, ডাইনিং চালু করতে হবে, ক্যান্টিনের খাবারের মান বৃদ্ধি করতে হবে। এসময় ছাত্রীদের আন্দোলনের কারণে সড়কটিতে যান চলাচল বন্ধ করে দেন।

আন্দোলন চলাকালে রাত ১০টার দিকে হলটির প্রভোস্ট ও প্রক্টরিয়াল বডির সদস্যরা ঘটনাস্থলে এসে ছাত্রীদের শান্ত করার চেষ্টা করেন। এসব দাবি বাস্তবায়নে হল প্রভোস্ট লিখিত আশ্বাস দিলে রাত ১১টার দিকে ছাত্রীরা সড়ক ছেড়ে হলে চলে যান। এসব ছাত্রীরা চলে যাওয়ার পর দ্বিতীয়দফা আন্দোলন শুরু করেন দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্রীরা। এবিষয়ে মন্তব্যের জন্য অধ্যাপক মোহা. মুজিবুর রহমানকে ফোন দেয়া হলে তিনি মিটিংয়ে আছেন বলে জানান।

Agami Soft. - Inventory Management System

পাঠকের মতামত