ডেঙ্গু আতংক : ডেঙ্গু হলে যে সকল খাবার বেশী খাবেন

বর্তমানে বাংলাদেশে এখন চলছে “ডেঙ্গু” আতঙ্ক। রাজধানীসহ সারাদেশের হাসপাতালগুলোতে ডেঙ্গু রোগী বেড়ে যাওয়ায় চিকিৎসা সেবা দিতে হিমশিম খাচ্ছে ডাক্তারগণ। এরইমধ্যে ডেঙ্গু আক্রান্ত হয়ে মারা যাওয়ার খবরও পাওয়া গেছে বিভিন্ন গণমাধ্যম থেকে। তবে ডেঙ্গু মরণঘাতী নয়। ডেঙ্গু হলে মৃত্যুর প্রধান কারণ রক্তে প্লাটিলেট কমে যাওয়া।

রক্তে প্লাটিলেটকে আমরা অণুচক্রিকা হিসেবে জানি। এটি কাজ হচ্ছে রক্তজমাটে সাহায্য করা। কোন মানুষের রক্তে প্লাটিলেট যদি ২০ হাজারের কম হয় তাহলে কোন প্রকার আঘাত ছাড়াই রক্তক্ষরণ হওয়ার সম্ভাবনা থাকে। তবে প্লাটিলেটের সংখ্যা কমে গেলে সাধারণ জীবনযাপন এবং খাদ্যাভাসে কিছুটা পরিবর্তন আনলে এর পরিমাণ বৃদ্ধি পাবে।

কিছু খাবার আছে যেগুলো প্লাটিলেট বৃদ্ধি করতে সহায়তা করে। তাহলে জেনে নেওয়া যাক সেইসব খাবারগুলোর নাম:

আমলকী: আমলকীতেও আছে প্রচুর ভিটামিন ‘সি’। এছাড়াও আমলকীতে প্রচুর অ্যান্টি অক্সিডেন্ট আছে। ফলে আমলকী খেলে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ে এবং প্লাটিলেট ধ্বংস হওয়া থেকে রক্ষা পায়।

ডালিম: ডালিম হচ্ছে আয়রনে ভরপুর। যার ফলে রক্তে প্লাটিলেট বাড়াতে ডালিম অনেক কার্যকরী ভূমিকা রাখে। প্রতিদিন ১৫০ মিলিলিটার ডালিমের জুস দুই সপ্তাহ পান করুন। ডালিমের রসের ভিটামিন দুর্বলতা দূর করে কাজে শক্তি দেবে।

লেবুর রস: লেবুর রসে প্রচুর ভিটামিন ‘সি’ থাকে। ভিটামিন সি রক্তে প্লাটিলেট বাড়াতে সহায়তা করে। এছাড়াও ভিটামিন ‘সি’ শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতাও বাড়িয়ে তোলে। ফলে প্লাটিলেট ধ্বংস হওয়া থেকেও রক্ষা পায়।

পেঁপে এবং পেঁপে পাতা: রক্তে প্লাটিলেটের পরিমাণ বাড়াতে সবথেকে কার্যকর ভূমিকা পালন করে পেঁপে এবং পেঁপে পাতার রস। মালয়েশিয়ার এশিয়ান ইনস্টিটিউট অব সায়েন্স অ্যান্ড টেকনোলোজির একটি গবেষণায় দেখা গেছে যে, ডেঙ্গু জ্বরের কারণে রক্তে প্লাটিলেটের পরিমাণ কমে গেলে পেঁপে পাতার রস তা দ্রুত বৃদ্ধি করে। রক্ত প্লাটিলেটের পরিমাণ কমে গেলে প্রতিদিন পেঁপে পাতার রস কিংবা পাকা পেঁপের জুস পান করুন।

অ্যালোভেরার রস: অ্যালোভেরা রক্তকে বিশুদ্ধ করে। রক্তের যেকোনো সংক্রমণ দূর করতেও অ্যালোভেরা উপকারী। তাই নিয়মিত অ্যালোভেরার জুস পান করলে রক্তের প্লাটিলেটের পরিমাণ বৃদ্ধি পায়।

মিষ্টি কুমড়া এবং কুমড়া বীজ: মিষ্টি কুমড়া রক্তের প্লাটিলেট তৈরি করতে বেশ কার্যকরী। এছাড়াও মিষ্টি কুমড়াতে আছে ভিটামিন ‘এ’ যা প্লাটিলেট তৈরি করতে সহায়তা করে। তাই রক্তের প্লাটিলেটের সংখ্যা বাড়াতে নিয়মিত মিষ্টি কুমড়া এবং এর বীজ খেলে উপকার পাওয়া যায়।

ডেঙ্গু আক্রান্ত রোগীকে বেশী বেশী তরল পান করাবেন। সেটি যে শুধু পানিই হতে হবে তা কিন্তু নয়। স্যালাইন, ডাবের পানি, ফলের জুস ইত্যাদি খাওয়ানোর চেষ্টা করবেন। এতে করে রোগীর শরীরের পানিশূন্যতা কমবে। আর অবশ্যই ডেঙ্গু রোগীকে যথেষ্ঠ বিশ্রামে থাকতে হবে। যত বেশী বিশ্রাম নিবে তত তাড়াতাড়ি সুস্থ্য হবে।


চাকরির নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি এবং পাশাপাশি সকল চাকরির প্রস্তুতি প্রকাশ করা হয় । এছাড়া দিনের ব্রেকিং নিউজ সবার আগে পেতে আমাদের সাথে যুক্ত থাকুন:facebook-button-join-group

সরকারি এবং বেসরকারি চাকুরির নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি পেতে facebook-button-join-group

Agami Soft. - Inventory Management System

পাঠকের মতামত