২২৪ পারবে নাকি ভারতের পথে হাঁটা ধরবে ইংলিশরা?

বিশ্বকাপের দ্বিতীয় সেমিফাইনালে আর্চার, ওকস এবং রাশিদের বোলিং তোপে ২২৩ রানে অলআউট বর্তমান চ্যাম্পিয়ন অস্ট্রেলিয়া। ক্রিজে থিতু হয়ে দাঁড়াতে পেরেছেন শুধু স্টিভ স্মিথ। তিনি সর্বোচ্চ ৮৫ রান করতে সক্ষম হয়েছেন।

স্মিথ ছাড়া অ্যালেক্স করেছেন ৪৬ রান। টস জিতে ব্যাটিং করতে নেমে শুরুতেই হোঁচট খায় অজিরা। দলের অধিনায়ককে দলীয় ২য় এবং নিজের প্রথম ওভারের প্রথম বলেই লেগ বিফোরের ফাঁদে ফেলেন জোফরা আর্চার। রানের খাতা খোলার আগেই মাঠ ছাড়েন তিনি। অজি ক্যাপ্টেন ফিন্স হয়তো ভাবেননি তার আউটের পর যে তাঁসের ঘরের মত ভেঙ্গে পড়বে টপ অর্ডার।

ইনিংসের ৩য় ওভারে আঘাত হানেন ক্রিস ওকস। এবার প্যাভিলীয়নের পথ ধরেন এবারের বিশ্বকাপে ২য় সর্বোচ্চ রান স্কোরার ডেভিড ওয়ার্নার (৯)। দলীয় ১৪ রানের মাথায় ক্রিস ওকসের দ্বিতীয় শিকার হয়ে ক্লিন বোল্ড হন পিটার হ্যান্ডসকম। দলের এমন অবস্থায় খেলার হাল ধরেন স্টিভ স্মিথ এবং কিপার অ্যালেক্স ক্যারি।

দুজনে মিলে ধীরে ধীরে ব্যাট চালিয়ে একটি পঞ্চাশোর্ধ জুটি গড়ে ৫ বারের চ্যাম্পিয়নদের খেলায় ফেরান। কিন্তু দলীয় ১১৭ রানে অজিদের শিবিরে আবারও আক্রমণ! এবার আক্রমণ চালালেন ইংলিশ রিষ্ট স্পিনার আদিল রাশিদ। একই ওভারে মার্ক স্টয়েনিসকে লেগ বিফোরে কাটেন আদিল।

১১৮ রানে ৫ উইকেট হারিয়ে খাদের কিনারায় চলে গেছে ক্যাঙ্গারুরা। সেখান থেকে আবার স্মিথ ফিরিয়ে আনেন। এবার তার সঙ্গি গ্লেন ম্যাক্সওয়েল। তিনি মোটামুটি চড়াও হয়ে ব্যাট চালাতে শুরু করেন। কিন্তু লাভ হল না ২৩ বলে ২২ রান করে আর্চারের দ্বিতীয় শিকারে পরিণত হন তিনি।

শেষদিকে এসে স্মিথও হাল ছেড়ে দেন। বাটলারের দুর্দান্ত থ্রোতে রান আউটে কাটা পড়েন তিনি। ফাইনালে যাওয়ার জন্য এখন ইংলিশদের সামনে ২২৪ রানের মামুলি টার্গেট। তবে ভারতের মত ইংলিশদের কাছে এই টার্গেট এভারেস্ট সমান করে তুলতে পারেন মিচেল স্টার্ক এবং কামিন্স।

পাঠকের মতামত