রাবিতে মুখে কালো কাপড় বেঁধে যৌন হয়রানির বিচার দাবি

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে (রাবি) মুখে কালো কাপড় বেঁধে যৌন হয়রানির অভিযোগের তদন্ত সাপেক্ষে বিচারের দাবি জানিয়েছে শিক্ষার্থীরা। আজ সোমবার দুপুরে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষা ও গবেষণা ইনস্টিটিউটের শিক্ষার্থীরা সাবাস বাংলাদেশ ভাস্কর্যের পাদদেশে দাঁড়িয়ে এই দাবি জানান।

ইনস্টিটিউটের শিক্ষার্থী আতিফা হক বলেন – ইনস্টিটিউট যে তদন্ত কমিটি করেছে, তার প্রতিবেদন এখনও জমা দেওয়া হয়নি। এই ধরনের বিষয়ে বিলম্ব হলে সেটি ধামাচাপা পড়ে যাওয়ার আশঙ্কা থাকে। আমরা এমনটি চাই না। দ্রুত অভিযোগের সুষ্ঠু তদন্ত করে দোষীর শাস্তি নিশ্চিত করা হোক।

জানতে চাইলে বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র উপদেষ্টা অধ্যাপক লায়লা আরজুমান বানু বলেন – ইনস্টিটিউট একটি তিন সদস্যের তদন্ত কমিটি করেছে। কমিটি বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের কাছে প্রতিবেদন জমা দিবে। তার প্রেক্ষিতে প্রশাসন ব্যবস্থা নিবে। তখন যদি প্রতিবেদন নিয়ে প্রশ্ন উঠে তাহলে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন নতুন তদন্ত কমিটি করবে।

উল্লেখ্য, গত ২৫ ও ২৭ জুন ইনস্টিটিউটের দুইজন ছাত্রী সহকারী অধ্যাপক বিষ্ণু কুমার অধিকারীর বিরুদ্ধে যৌন হয়রানি ও মানসিকভাবে উত্ত্যক্তের লিখিত অভিযোগ করেন। এর পরদিন ইনস্টিটিউটের এক জরুরি সভায় বিষ্ণু কুমার অধিকারীকে দ্বিতীয় ও চতুর্থ বর্ষের একাডেমিক কার্যক্রম থেকে সাময়িক অব্যাহতি দিয়ে তিন সদস্যের যাচাই কমিটি গঠন করা হয়।

এরপর ২৮ জুন নিরাপত্তা চেয়ে নগরীর মতিহার থানায় অভিযোগকারী ওই দুই শিক্ষার্থী সাধারণ ডায়েরি করেন। গত ৩০ জুন অভিযুক্ত শিক্ষকের সর্বোচ্চ শাস্তির দাবিতে মানববন্ধন পালিত হয়। পরে শিক্ষার্থীদের আবেদনের প্রেক্ষিতে বিষ্ণু কুমার অধিকারীকে সকল বর্ষের ক্লাস, পরীক্ষা ও খাতা মূল্যায়ন কার্যক্রম থেকে অব্যাহতি দেওয়া হয়।

#তানভীর ইসলাম, রাবি প্রতিনিধি।

পাঠকের মতামত