‘রিজার্ভ ডে’ না রাখার পিছনে কারণ দেখালো আইসিসি

ছবি: আইসিসির বিদায়ী প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা ডেভ রিচার্ডসন বলেন - প্রতিটি ম্যাচের জন্য রিজার্ভ ডে রাখলে টুর্নামেন্টের সময়সীমা বেড়ে যাবে। এ ছাড়া এটি বেশ কঠিন একটি বিষয়।

১৯৯২ সালের বিশ্বকাপে বৃষ্টির কারণে ২টি ম্যাচ পরিত্যক্ত হয়েছে। এমনটা ২০০২ সালের বিশ্বকাপেও ঘটেছিল। তবে ইংল্যান্ড বিশ্বকাপ এবারে পরিত্যক্ত ম্যাচের রেকর্ড ভেঙে ফেললো। গতকাল বাংলাদেশ-শ্রীলঙ্কা ম্যাচ নিয়ে ৩টি ম্যাচ পরিত্যক্ত হয়েছে। যেটি কোন বিশ্বকাপে সর্বোচ্চ ম্যাচ পরিত্যক্ত হওয়ার নজির।

তবে নির্দিষ্ট দিনে ম্যাচ অনুষ্ঠিত হলেও ‘রিজার্ভ ডে’ তে ম্যাচ অনুষ্ঠিত হওয়ার নজিরও কম নেই। কিন্তু এবারের বিশ্বকাপে কোন ম্যাচের জন্যই রিজার্ভ ডে রাখেনি ক্রিকেট নিয়ন্ত্রণ সংস্থা আইসিসি। অবশ্য রিজার্ভ ডে না রাখার পিছনে আত্মপক্ষ সমর্থন করে কিছু যুক্তি তুলেছেন সংস্থাটি। আইসিসি ইংল্যান্ডের আবহাওয়াকে “অপ্রত্যাশিত আবহাওয়া” উল্লেখ দাবি করেন, সবকিছু নতুন করে সাজিয়ে আবারও ম্যাচের আয়োজন করা কষ্টসাধ্য।

অপরদিকে বিবিসি স্পোর্টস আজ বুধবার এক প্রতিবেদনে জানায়, বৃষ্টির কারণে ম্যাচ পরিত্যক্ত হওয়ার ঘটনায় দুঃখ প্রকাশ করে ইংল্যান্ডের বর্তমান আবহাওয়াকে ‘অত্যন্ত অপ্রত্যাশিত’ বলে মন্তব্য করেছে আইসিসি। গত বছরের এ সময়ে ইংল্যান্ডের দক্ষিণ-পূর্বাঞ্চলীয় এলাকায় ২ মিলিমিটার বৃষ্টিপাত রেকর্ড করা হয়েছিল, সেখানে এ বছর এখন পর্যন্ত ১০০ মিলিমিটার বৃষ্টিপাত রেকর্ড করা হয়েছে বলে আইসিসি জানায়।

CWC 2019 Rain

ছবি: এবারের বিশ্বকাপে পয়েন্ট তালিকায় ২য় স্থানে অবস্থান করছে ইংল্যান্ডের বৈরি আবহাওয়া।

রিজার্ভ ডের ব্যবস্থা রাখা অত্যন্ত কষ্টসাধ্য উল্লেখ করে আইসিসির বিদায়ী প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা ডেভ রিচার্ডসন বলেন – রিজার্ভ ডেতেও যে বৃষ্টিপাত হবে না, এর কোনো নিশ্চয়তা নেই। রিচার্ডসন আরো বলেন – প্রতিটি ম্যাচের জন্য রিজার্ভ ডে রাখলে টুর্নামেন্টের সময়সীমা বেড়ে যাবে। এ ছাড়া এটি বেশ কঠিন একটি বিষয়।

নতুন করে পিচের প্রস্তুতি, স্বেচ্ছাসেবক ও কর্মকর্তাদের প্রস্তুতি, ভ্রমণের সময়, ভেন্যুর অবস্থা, ব্রডকাস্টসহ যে দর্শকরা অনেক পথ পাড়ি দিয়ে খেলা দেখতে এসেছেন, তাঁদের ক্ষেত্রেও বিষয়টি প্রভাব ফেলত বলে মনে করছেন রিচার্ডসন। এদিকে বাংলাদেশ বনাম শ্রীলঙ্কার ম্যাচটি পরিত্যক্ত হওয়ায় ক্ষোভ প্রকাশ করে বাংলাদেশের কোচ স্টিভ রোডস বলেছেন – আমরা চাঁদে মানুষ পাঠাতে পারি, অথচ রিজার্ভ ডে রাখতে পারি না।

এই ম্যাচটি না হওয়ায় বাংলাদেশের ক্ষতি হয়েছে উল্লেখ করে স্টিভ আরো বলেন – এই ম্যাচ থেকে দুই পয়েন্ট পাওয়ার লক্ষ্য ছিল আমাদের। তাই ম্যাচটি না হওয়ায় আমরা খুবই হতাশ। ইংলিশ আবহাওয়ায় প্রচুর বৃষ্টিপাত হবেই। তাই রিজার্ভ ডে রাখা উচিত ছিল। শ্রীলঙ্কার অধিনায়ক দিমুথ করুনারত্নে বলেছেন – রিজার্ভ ডের আয়োজন করা কষ্টসাধ্য, কিন্তু এটি হলে সব দলের জন্যই ভালো হতো।

পাঠকের মতামত