রাণীশংকৈলে একদিকে উচ্ছেদ অভিযান, অন্যদিকে হেলমেট অভিযান

ঠাকুরগাঁওয়ের নেকমরদ হাটের অবৈধ স্থাপনা গুড়িয়ে দিচ্ছেন  প্রশাসন। উত্তরবঙ্গের ঠাকুরগাঁওয়ের সর্ববৃহৎ নেকমরদ হাটের অবৈধ স্থাপনা গুড়িয়ে দিয়েছে প্রশাসন । ১০ জুন সোমবার থেকে শুরু হওয়া  ঠাকুরগাঁওয়ের রাণীশংকৈল উপজেলার নেকমরদ বাজারের পূর্ব পাশে অবস্থিত অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ অভিযানে নেতৃত্ব দেন ঠাকুরগাঁওয়ের নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট অমিত কুমার সাহা।

প্রশাসনের পক্ষ থেকে জানানো হয়, মহাসড়কের পাশে দীর্ঘদিন থেকে সরকারি জমি অবৈধ ভাবে দখল করে ব্যবসা করে আসছিলেন একশ্রেণির মানুষ। তাদের বার বার নোটিশ দেওয়া হলেও তারা নিজ উদ্যেগে প্রতিষ্ঠান সরিয়ে না নেওয়ায় এই উচ্ছেদ অভিযান পরিচালনা করা হয়। এ সময় রাণীশংকৈলের সহকারি কমিশনার (ভূমি) সোহাগ চন্দ্র সাহা, রাণীশংকৈল থানার তদন্ত কর্মকর্তা খায়রুল আনাম ডন সহ প্রশাসনের কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

সহকারি কমিশনার (ভূমি) সোহাগ চন্দ্র সাহা বলেন – অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ কার্যক্রম চলমান ধাপের আজ প্রথম পর্ব। পর্যায়ক্রমে সকল অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ কার্যক্রম অব্যাহত থাকবে।

Untitled

এদিকে, রাণীশংকৈল থানা পুলিশ রাস্তায় নেমেছে হেলমেট অভিযানে। অভিযান শুরু হওয়ার পর থেকে বাধ্য হয়ে হেলমেট কিনছেন মোটরসাইকেল চালকরা। ১২ জুন বুধবার সকাল দশটা থেকে ঠাকুরগাঁওয়ের রানীশংকৈল থানা পুলিশ সদস্যরা বাইক চালকদের আইনের প্রতি শ্রদ্ধা রেখে মাথায় হেলমেট পড়ার জন্য অনুরোধ জানাতে দেখা গেছে।

এসময় এস আই আহসান, এস আই জিল্লুর  রহমান  ও এস আই মিজান সহ কয়েক জন কনস্টেবল নিয়ে রানিশংকৈল শিবদীঘিতে এ অভিযান পরিচালনা করেন। তারা মোটরসাইকেল চালকদের হেলমেট পরতে বাধ্য করেন। এ সময় দেখা যাই রাস্তার পাশ্ববর্তী দোকান থেকে অনেকেই নতুন হেলমেট কিনছে এবং ব্যাবহার করছে।

এস আই আহসান বলেন –  আমরা সারা বাংলাদেশের ন্যায় ঠাকুরগাঁও জেলার পাঁচটি উপজেলাতে একসাথে এসপির নির্দেশে এই হেলমেট বিরোধী অভিযান পরিচালনা করছি এবং এটি অব্যাহত থাকবে। হেলমেট পড়িধান করে গাড়ি চালালে অনেক ছোটখাট বিপদের হাত থেকে বেঁচে যাবে মোটরসাইকেল চালকগন।তাই আমরা মোটরসাইকেল চালকদের হেলমেট ব্যবহার করতে বাধ্য করছি ।

#মোঃ নাজমুলহোসেন, রানীশংকৈল ঠাকুরগাঁও প্রতিনিধি।

Agami Soft. - Inventory Management System

পাঠকের মতামত