লক্ষ্মীপুরে বাস ভাড়া বৃদ্ধি, যাত্রীদের মধ্যে ক্ষোভ ও অসন্তোষ

ইসলাম ধর্মের সবচেয়ে বড় ধর্মীয় উৎসব পবিত্র ঈদ উল ফিতর। আর এই বড় ধর্মীয় উৎসবের ছুটিতে মুসলমানরা ছাড়াও সকল ধর্মের মানুষ ছুটে আসেন গ্রামের বাড়িতে। ঈদ-উল-ফিতর শেষ হয়েছে এক সপ্তাহ হয়েছে।

ঈদের এক সপ্তাহ পরেও লক্ষ্মীপুরে বাসের বাড়তি ভাড়া রয়ে গেছে। লক্ষ্মীপুর থেকে ঈদ শেষে কর্মস্থলে ফেরার পথে বাসের যাত্রীদের কাছ থেকে বাড়তি ভাড়া আদায় করছেন পরিবহন শ্রমিকরা। আর এ বাস ভাড়া বৃদ্ধির খপ্পরে যাত্রীদের মধ্যে ক্ষোভ ও অসন্তোষ বিরাজ করছে। এ ঘটনায় প্রশাসনের পক্ষ এখনো কোন ব্যবস্থা গ্রহনের কথা শুনা যায়নি।

ঈদে যাতায়াতে এই লাগামহীন বাস ভাড়া বৃদ্ধিতে চরম বিড়ম্বনায় পড়েছেন ঢাকা-চট্টগ্রামে বসবাসরত জেলার বিভিন্ন শ্রেণী-পেশার মানুষ। তারা ভাড়া বৃদ্ধির প্রবণতা রোধে প্রশাসনের নজর দারির দাবি জানিয়েছেন। তবে পরিবহন শ্রমিকদের দাবি, বাস ভাড়া কিছুটা বৃদ্ধি করা হলেও যাত্রীদের যাতায়াতের সুবিধায় চলাচল করছে পর্যাপ্ত বাস সার্ভিস। এ ছাড়াও লক্ষ্মীপুর থেকে ঢাকা-চট্টগ্রামগামী যাত্রীরা ভাড়া কিছুটা বেশি দিলেও ঢাকা-চট্টগ্রাম থেকে ওই বাস গুলো লক্ষ্মীপুরে ফিরছে সম্পূর্ণ যাত্রীশূন্য হয়ে।

সরেজমিনে গিয়ে দেখা গেছে, লক্ষ্মীপুর থেকে ঢাকা-চট্টগ্রাম চলাচলকারী সব বাসে যাত্রীদের কাছ থেকে অতিরিক্ত ভাড়া আদায় করছে। এর মধ্যে ইকোনো বাস সার্ভিসের নির্ধারিত ভাড়া ৪০০ টাকা এখন নেওয়া হচ্ছে ৫৫০-৬০০ টাকা, ঢাকা এক্সপ্রেস বাস সার্ভিসের নির্ধারিত ভাড়া ৪০০ টাকা এখন নেওয়া হচ্ছে ৫৫০ টাকা, জোনাকী বাস সার্ভিসের নির্ধারিত ভাড়া ৩০০ টাকা এখন নেওয়া হচ্ছে ৪৫০ টাকা,

এছাড়াও, মিয়ামি এসি বাস সার্ভিসের নির্ধারিত ভাড়া ৫০০ টাকা এখন নেওয়া হচ্ছে ৮৫০ টাকা, রয়েল এসি বাস সার্ভিসের নির্ধারিত ভাড়া ৫০০ টাকা এখন নেওয়া হচ্ছে ৮৫০ টাকা করে। চট্টগ্রামগামী শাহী সার্ভিসের নির্ধারিত ভাড়া ৩০০ টাকা এখন নেওয়া হচ্ছে ৪৫০ টাকা, জোনাকী সার্ভিসের নির্ধারিত ভাড়া ৩০০ টাকা এখন নেওয়া হচ্ছে ৪৫০ টাকা হারে। এছাড়াও লক্ষ্মীপুর থেকে কুমিল্লা ও ফেনীসহ জেলার প্রায় সকল রোডে অতিরিক্ত ভাড়া আদায় করছে পরিবহন শ্রমিকরা।

#রবিউল ইসলাম খান, লক্ষ্মীপুর প্রতিনিধি।

Agami Soft. - Inventory Management System

পাঠকের মতামত