নেশন্স লিগের প্রথম চ্যাম্পিয়ন পর্তুগাল

প্রথমবারের মত ইউরোপের দেশগুলো নিয়ে আয়োজন করা হয় উয়েফা নেশন্স লিগ। আর প্রথমবারের মত আয়োজিত এই লিগে চ্যাম্পিয়নের মুকুট পরে নেয় পর্তুগাল। লিগের প্রথম আসরে শক্তিশালী নেদারল্যান্ডসকে হারিয়ে শিরোপা ঘরে তুলল পর্তুগাল।

পোর্তোর এস্টাডিও দো দ্রাগাওয়ে অনুষ্ঠিত সেই অসাধারণ ম্যাচে বার্নার্ডো সিলভার পাস থেকে ৬০ মিনিটে দুর্দান্ত গোলটি করলেন গনকালো গুয়েদেস। এই একমাত্র গোলেই নেশন্স লিগের শিরোপা জিতে নিলো পর্তুগাল।

পর্তুগাল ৩১তম মিনিটে ম্যাচের প্রথম উল্লেখযোগ্য সুযোগ পায়। তবে সেমি-ফাইনালে হ্যাটট্রিক করা রোনালদোর জোরালো হেড রুখে দেন বার্সেলোনা গোলরক্ষক ইয়াসপের সিলেসেন। প্রথমার্ধের বাকি সময়েও প্রতিপক্ষের রক্ষণে চাপ ধরে রাখে দলটি, যদিও এ সময়ে নিশ্চিত কোনো সুযোগ তৈরি করতে পারেনি তারা।

তবে ৬০ মিনিটে ওলন্দাজদের বিপক্ষে অসাধারণ একটি গোল আদায় করে নেয় পর্তুগিজরা। অ্যাটাকিং হাফ থেকে বল নিয়ে এগিয়ে যান বার্নার্ডো সিলভা। বক্সের মধ্যে গিয়ে নিজে চেষ্টা করেন শট নেয়ার। কিন্তু ডাচ ডিফেন্ডারদের কারণে শট নেয়ারই চেষ্টা করেননি।

ম্যাচে ৪৩ ভাগ বল পজেশন ছিল পর্তুগালের। ৫৭ ভাগ ছিল ডাচদের দখলে। গোলে শট নিয়েছে বেশি পর্তুগালই। ১৮টি। এরমধ্যে অন টার্গেটই ছিল ৭টি। বিপরীতে নেদারল্যান্ডস শট নিয়েছে কেবল ৪টি। যার মধ্যে অনটার্গেট শট ছিল মাত্র ১টি।

৩ বছর আগে ফ্রান্সকেও ১-০ গোলে হারিয়ে প্রথমবারেরমত ইউরো চ্যাম্পিয়নশিপ জিতেছিল পর্তুগিজরা। এদিকে রাশিয়া বিশ্বকাপের শেষ ষোলো থেকে বিদায় নেওয়ার পর এই নিয়ে ১০ ম্যাচ খেলে অপরাজিত রইলো পর্তুগাল।

এদিকে গত ইউরো এবং বিশ্বকাপে খেলার যোগ্যতা অর্জন করতে পারেনি নেদারল্যান্ডস। সেই ব্যর্থতা থেকে ঘুরে দাঁড়ানোর ইঙ্গিত দিচ্ছে ডাচরা। যার প্রতিফলন উয়েফা নেশন্স কাপের ফাইনালে খেলা।

পাঠকের মতামত