হঠাৎ করে সেন্টমার্টিনে বিজিবিকে সতর্ক অবস্থান নেওয়ার পরামর্শ কেন?

গত মঙ্গলবার জাতীয় সংসদ ভবনের প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের স্থায়ী কমিটির বৈঠকে সেন্টমার্টিনে বাংলাদেশের সীমান্তরক্ষী বাহিনীকে সতর্ক অবস্থানে থাকার পরামর্শ দিয়েছে প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় কমিটি।

কক্সবাজারের সেন্টমার্টিন নিজেদের ভূখণ্ড বলে দাবি করে আসছিল মিয়ানমার। কিন্তু অবশেষে তারা তাদের ভুল বুঝতে পেরেছে। তারা স্বীকার করে নিয়েছে, সেন্টমার্টিন তাদের নিজ ভূখণ্ড না।

কিন্তু যেহেতু মিয়ানমার পার্শ্ববর্তী দেশ, তাই সেন্টমার্টিনে বাংলাদেশ সীমান্তরক্ষী বাহিনীকে (বিজিবি) এই পরামর্শ দিয়েছে মন্ত্রণালয়ের স্থায়ী কমিটি। সেখানে টহল জোরদার করারও সুপারিশ করা হয়। সূত্র থেকে জানা যায়, বৈঠকে কমিটির সদস্য কর্নেল (অব.) ফারুক খান বিষয়টি উত্থাপন করে বলেন – সেন্টমার্টিনে টহল বাড়াতে হবে, সতর্ক থেকে ডিউটি পালন করতে হবে।

পাশাপাশি বিজিবিকে আধুনিক সরাঞ্জাম বৃদ্ধির প্রস্তাব করেন তিনি। কমিটির আরেক সদস্য নাহিদ ইজাহার খান বলেন – আগে মিয়ানমার থেকে ইয়াবার চালান আসত। আর এখন রোহিঙ্গারা এখানেই রয়েছে। তাই মাদকের ভয়াবহতা আরও বৃদ্ধি পেতে পারে। এজন্য প্রশাসনকে আরও কঠোর অবস্থানে থাকার প্রস্তাব করেন তিনি।

বৈঠকে পার্বত্য চট্টগ্রাম এলাকার নিরাপত্তা ব্যবস্থা, সেন্টমার্টিনে সম্প্রতি বিজিবি মোতায়েন ও মিয়ানমার থেকে আগত বাস্তুচ্যুত শরণার্থীদের বিষয়ে বিস্তারিত আলোচনা হয়। এ সময় পার্বত্য চট্টগ্রাম এলাকার নিরাপত্তা ব্যবস্থা নিশ্চিত করার লক্ষ্যে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকে শক্তিশালী ও সক্রিয় হওয়ার পরামর্শ দেয়া হয়। কমিটি সশস্ত্র বাহিনীতে কর্মরত ধর্মীয় শিক্ষকদের প্রথম শ্রেণীর পদমর্যাদা দেয়ার বিষয়ে মন্ত্রণালয় কর্তৃক প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের সুপারিশ করে।

কমিটির সভাপতি মেজর জেনারেল (অব.) মোহাম্মদ সুবিদ আলী ভূঁইয়ার সভাপতিত্বে বৈঠকে কমিটির সদস্য কর্নেল (অব.) মুহাম্মদ ফারুক খান, মোতাহার হোসেন, নাসির উদ্দিন, মহিববুর রহমান ও নাহিদ ইজাহার খান অংশ নেন।

পাঠকের মতামত