রিকশাচালক দিল প্রধানমন্ত্রীকে ফোন, তারপর যা ঘটলো………

রিকশা চালিয়ে অতিকষ্টে দিনযাপন করেন নেত্রকোনার মো. ডালিম। ফেসবুকের কোথাও হয়তো পেয়েছিলেন প্রধানমন্ত্রীর ফোন নম্বর। সেই নম্বর ভুল না সঠিক, তা নিয়েও ছিল সংশয়। অনেকটা ভাগ্যের ওপর নির্ভর করে সাহস নিয়েই ফোন দেন ওই নম্বরে। ফোন ধরতেই চমকে যান তিনি। অবাক করে দিয়ে ফোন ধরেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। কথা বলেন দরিদ্র রিকশাচালকের সঙ্গে।

দরিদ্র রিকশাচালক ডালিমের জীবনে গত রোববার ঘটে যায় এমন ঘটনা। তিনি নেত্রকোনার বারহাট্টা উপজেলার বৃ-কালিকা গ্রামের মৃত আবদুর রাজ্জাকের ছেলে। ওই নম্বরে ফোন দিতেই প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ফোন ধরেন, জানতে চান পরিচয়। ডালিম প্রধানমন্ত্রীকে জানান, তিনি নেত্রকোনার বারহাট্টার একজন দরিদ্র রিকশাচালক। অভাবের সংসার তার। বউ-বাচ্চা নিয়ে কষ্টেই জীবনযাপন করছেন তিনি।

গতকাল মঙ্গলবার নিজের এই অভিজ্ঞতার কথা সাংবাদিকদের জানালেন ডালিম। প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে কী কথা হলো তা-ও জানিয়েছেন তিনি। কেমন লাগছে প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে কথা বলে—এ কথা জানতে চাইলে ডালিম বলেন – প্রধানমন্ত্রীর সাথে কথা কইয়া বিরাট খুশি হইসি।

প্রধানমন্ত্রী ডালিমকে জিজ্ঞাসা করেন, তার কোনো সাহায্যের প্রয়োজন কি না। ডালিম প্রধানমন্ত্রীর কাছে একটি ইজিবাইক ও একটি গাভী চান। প্রধানমন্ত্রীও তাকে সাহায্য করার আশ্বাস দেন। ডালিমের বিস্তারিত পরিচয় জানতে নেত্রকোনার জেলা প্রশাসককে দায়িত্ব দেওয়া হয়। জেলা প্রশাসক খুঁজে বের করেন ডালিমকে। এরপর গতকাল মঙ্গলবার বিকেলে উপজেলা প্রশাসনের উদ্যোগে উপজেলা পরিষদ চত্বরে জেলা প্রশাসক মঈনউল ইসলাম আনুষ্ঠানিকভাবে ডালিমের কাছে ইজিবাইক ও গাভী হস্তান্তর করেন।

এ সময় উপজেলা চেয়ারম্যান মাঈনুল হক কাসেম, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ফরিদা ইয়াসমিন, উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আজিজুর রহমান, উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) সাদিয়া অমুল বানিন, উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের সাবেক কমান্ডার শাহ্ মোহাম্মদ আবদুল কাদের, বর্ডার গার্ড বাংলাদেশের (বিজিবি) সাবেক উপসহকারী পরিচালক (ডিএডি) মুক্তিযোদ্ধা নূর উদ্দিন ও এলাকার গণ্যমান্য ব্যক্তিরা উপস্থিত ছিলেন।

বারহাট্টা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) ফরিদা ইয়াসমিন জানান, উপজেলা সদরের বৃ-কালিকা গ্রামের হতদরিদ্র রিকশাচালক মো. ডালিম গত রোববার রাতে মোবাইল ফোনের মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে কথা বলেন। প্রধানমন্ত্রীর কাছে তার জীবন-সংগ্রামের কাহিনী তুলে ধরেন। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তার কথা শোনেন। ডালিম প্রধানমন্ত্রীর কাছে ইজিবাইক ও গাভী চান। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা জেলা প্রশাসকের মাধ্যমে গতকাল ডালিমকে ৬৮ হাজার টাকার ইজিবাইক ও ৭০ হাজার টাকা মূল্যের গাভী ও হাতে পাঁচ হাজার টাকা দেন। প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে জেলা প্রশাসক আনুষ্ঠানিকভাবে ডালিমের হাতে এগুলো তুলে দেন।

Agami Soft. - Inventory Management System

পাঠকের মতামত