আইরিশদের ২৯২ রানের বিপরীতে উজ্জ্বল আবু জায়েদ রাহি

ত্রিদেশীয় সিরিজের ৬ষ্ঠ ম্যাচে আয়ারল্যান্ডের মুখোমুখি হয়েছে বাংলাদেশ। বাংলাদেশ এবং ওয়েস্ট ইন্ডিজ ফাইনালে উঠে যাওয়ার ফলে আজকের ম্যাচটি নিয়ম রক্ষার ম্যাচ হয়ে উঠেছে। তাই নির্ভার বাংলাদেশ দলেও কিছু পরিবর্তন আনা হয়েছে।

বাংলাদেশ দলের ওপেনিং এবং পেস বোলিংয়ে পরিবর্তন আনা হয়েছে। সৌম্য সরকারকে এই ম্যাচে বিশ্রাম দিয়ে মাঠে নামানো হয়েছে লিটন দাসকে। অপদিকে আগের ম্যাচে দুর্দান্ত বোলিং করা মুস্তাফিজের বদলে মাঠে নেমেছে রুবেল হোসেন। এছাড়াও মোহাম্মদ মিথুনের স্থলে মোসাদ্দেক হোসেন, স্পিনার মেহেদি মিরাজের স্থলে বোলিং করবে পেসার মোহাম্মদ সাইফুদ্দিন।

টস জিতে প্রথমে ব্যাটিংয়ে নেমে শুরুটা ভালো করতে পারেনি আয়ারল্যান্ড। দলীয় ২৩ রানে ওপেনার জেমস ম্যাককোলামকে (৫) আউট করেন রুবেল। এরপর দলীয় ৫৯ রানে এন্ড্রু বালবিনিকে ফেরান আবু জায়েদ। বালবিনির আউটের পর ওপেনার পল স্টার্লিংয়ের সাথে জুটি বাঁধেন উইলিয়াম ফোর্টারফিল্ড। এই জুটিই ভুগিয়েছে বাংলাদেশের বোলারদের। এই দুই জুটি থেকে ১৭৪ রান আসে। দুইজনই হাফসেঞ্চুরি পুরণ করেন।

দলীয় ২৩৩ রানে ফোর্টাফিল্ডকে ফেরান আবু জায়েদ। সেঞ্চুরি থেকে মাত্র ৬ রান দূরে থেকে লিটন দাসের তালুবন্দি হন তিনি। এদিকে, স্টার্লিং তার শতক ঠিকই পুরণ করে নেন। সেই আবু জায়েদের বলে আউট হওয়ার আগে তিনি চার ছক্কা ও আট চারের বিনিময়ে ১৩৩ রান করেন।

এদিকে আজ বাংলাদেশের বোলারদের মধ্যে সবথেকে উজ্জ্বল আবু জায়েদ রনি। আন্তর্জাতিক ক্যারিয়ারে প্রথমবারের মত ৫ উইকেট লাভ করেন তিনি। রনি ছাড়া আর কোন বোলারই তেমন কোন কিছু দেখাতে পারেনি। ইতিহাস গড়ার দিনে সাকিব আল হাসান ৯ ওভার করে উইকেটহীন থেকে দিয়েছেন ৬৫ রান। ক্যাপ্টেন ম্যাশও আজ অনেকটা ম্লান হয়েছিলেন। তিনি ৮ ওভার বোলিং করে দিয়েছেন ৪৭ রান।

স্টার্লিংয়ের আউটের পর আর কোন ব্যাটসম্যান দাঁড়াতে না পারায় ২৯২ রানে আইরিশদের ইনিংস। বাংলাদেশের পক্ষে আবু জায়েদ ৯ ওভারে ৫৮ রান দিয়ে ৫ উইকেট নেন। এছাড়া সাইফুদ্দিন ৯ ওভার বোলিং করে ৪৩ রানে ২ উইকেট নেন। একটি উইকেট নেন রুবেল হোসেন।

২৯৩ রানের টার্গেটে ব্যাটিং করতে নামবে তামিম ইকবাল ও লিটন দাস।

 

Agami Soft. - Inventory Management System

পাঠকের মতামত