ক্ষুদে বিজ্ঞানীদের আবিষ্কার দেখার অপেক্ষায় বাংলাদেশ

দেশব্যাপী স্কুল-শিক্ষার্থীদের বিজ্ঞানের দিকে আরো মনোযোগী করতে ঢাকা আঞ্চলিক উৎসবের মধ্য দিয়ে শুরু হচ্ছে বিজ্ঞানচিন্তা-বিকাশ বিজ্ঞান উৎসব। এই বিজ্ঞান উৎসব আসাদ গেট সংলগ্ন সেন্ট যোসেফ হায়ার সেকেন্ডারি স্কুল এন্ড কলেজ মাঠে অনুষ্ঠিত হবে।

উৎসবটি উদ্বোধন করবেন সেন্ট যোসেফ হায়ার সেকেন্ডারি স্কুল অ্যান্ড কলেজের অধ্যক্ষ ব্রাদার রবি পিউরিফিকেশন, বিকাশের প্রধান নির্বাহী কামাল কাদির ও প্রথম আলোর সম্পাদক মতিউর রহমান। নিনো নামের একটি রোবটের মাধ্যমে উৎসবের উদ্বোধন ঘোষণা করা হবে।

অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত থাকবেন, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের তাত্ত্বিক পদার্থবিজ্ঞানের অধ্যাপক ড. আরশাদ মোমেন, বাংলাদেশ পারমাণবিক শক্তি কমিশনের সাবেক জ্যেষ্ঠ বিজ্ঞানী ড. রেজাউর রহমান, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের বায়োমেডিকেল ফিজিকস ও টেকনোলজি বিভাগের খণ্ডকালীন অধ্যাপক ড. সিদ্দিক-ই-রব্বানী এবং বিজ্ঞানচিন্তার সম্পাদক আবদুল কাইয়ুম।

উৎসবে আগে থেকেই নিবন্ধন করা ঢাকা বিভাগের হবে ৬ষ্ঠ-১০ম শ্রেণির শিক্ষার্থীরা প্রজেক্ট প্রদর্শনী ও কুইজ প্রতিযোগিতা বিভাগে অংশ নেবে। কুইজ প্রতিযোগিতায় দুটি ক্যাটাগরি থাকবে। ‘নিম্ন মাধ্যমিক’ ক্যাটাগরিতে ষষ্ঠ-অষ্টম শ্রেণির শিক্ষার্থীরা অংশ নেবে। ‘মাধ্যমিক’ ক্যাটাগরিতে অংশ নেবে নবম-দশম শ্রেণির বিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষার্থীরা। প্রজেক্ট প্রদর্শনীতে কোনো ক্যাটাগরি থাকছে না।

অনুষ্ঠানে প্রতিযোগিতা ছাড়াও থাকছে রোবটের নাচ, রোবট প্রদর্শনী, গান, ম্যাজিক, বিজ্ঞানের খেলা, বিজ্ঞানবিষয়ক প্রশ্নোত্তরসহ আরও নানা আয়োজন। বিজ্ঞানবিষয়ক বই ও সরঞ্জামের স্টলও থাকবে উৎসবে। লাভেলোর পক্ষ থেকে সকল প্রতিযোগীকে বিনা মূল্যে সরবরাহ করা হবে আইসক্রিম।

উল্লেখ্য, মাসিক ম্যাগাজিন বিজ্ঞানচিন্তা এবং দেশের সবচেয়ে বড় মোবাইল ফিন্যান্সিয়াল সার্ভিস প্রদানকারী প্রতিষ্ঠান বিকাশের আয়োজনে ঢাকা ছাড়াও বাকি ছয়টি বিভাগে আয়োজিত হবে মোট ৭টি আঞ্চলিক উৎসব। আঞ্চলিক উৎসবে বিজয়ীরা ঢাকায় অনুষ্ঠিতব্য জাতীয় উৎসবে অংশ নেওয়ার সুযোগ পাবে। পুরস্কৃত করা হবে আঞ্চলিক ও জাতীয় উভয় উৎসবে বিজয়ীদের। অনুষ্ঠানে সার্বিক সহযোগিতায় থাকবে প্রথম আলো বন্ধুসভা।

পাঠকের মতামত