বেরোবিতে ছাত্রলীগ সভাপতির ১৪ লাখ টাকা চাঁদা দাবি

ছবি: বেরোবি শাখা ছাত্রলীগ সভাপতি আবু মোন্নাফ আল কিবরিয়া ওরফে তুষা কিবরিয়া।

বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ে (বেরোবি) নির্মণানাধীন ড.ওয়াজেদ রিসার্স ইনস্টিটিউট এবং শেখ হাসিনা ছাত্রী হল ভবনে বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগ সভাপতি আবু মোন্নাফ আল কিবরিয়ার (তুষা কিবরিয়া) ১৪ লক্ষ টাকার চাঁদা দাবি করার খবর পাওয়া যায়। শনিবার রংপুর মেট্রোপলিটন তাজহাট থানায় অভিযোগ তুলে একটি সাধারণ ডায়েরী (জিডি) করেছেন নির্মাণাধীন ভবনের সাইট ইঞ্জিনিয়ার মোশারফ হোসাইন।

নির্মাণাধীন ভবনের সাইট ইঞ্জিনিয়ার মোশারফ সাধারণ ডায়েরীতে (জিডি) অভিযোগ করে বলেন – গত ১২ এপ্রিল বিকাল ৩টায় আমি নির্মাণাধীন ড. ওয়াজেদ রিসার্চ ইনস্টিটিউটের সাইটে অফিস কক্ষে অবস্থান করার সময় ছাত্রলীগ সভাপতি তুষার কিবরিয়া আমার অফিস কক্ষে এসে ১৪ লক্ষ টাকার চাঁদা দাবি করেন। এসময় ১ লক্ষ টাকা সেদিন সন্ধ্যার মধ্যে দাবি করেন এবং বাকি ১৩ লক্ষ টাকা পরবর্তীতে দিতে হবে বলে হুমকি দিয়ে যান।

জিডি’তে আরো বলা হয় – এসময় প্রজেক্টের ইনচার্জ ইঞ্জিনিয়ার ইকবাল বাহারকে টাকা দেওয়ার চাপও সৃষ্টি করেন তুষার কিবরিয়া। এছাড়াও শ্রমিকদের উপর বিভিন্নভাবে ভয়-ভীতি ও চাপ প্রদর্শন করে কাজ বন্ধ করে দিয়ে যান। এরপর থেকে আমি নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছি।

ad_2019-04-11_6_16_b(1)(1)(1)(1)(1)(1)(1)(1)

এ বিষয়ে ইঞ্জিনিয়ার মোশারফ হোসাইনের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন – বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগ সভাপতি তুষার কিবরিয়া আমার কাছে চাঁদা দাবি করেছে এবং হুমকি দিয়েছে তাই আমি নিরাপত্তার জন্য থানায় সাধারণ ডায়েরি করেছি। সাধারণ ডায়েরীর বিষয়টি নিশ্চিত করে তাজহাট থানার ওসি শেখ রোকনুজ্জামান বলেন – এ ব্যাপারে গত শনিবার একটা জিডি করেছেন তিনি (মোশারফ হোসাইন)।

তবে অভিযোগ অস্বীকার করে ছাত্রলীগ সভাপতি তুষার কিবরিয়া বলেন – বর্তমান বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন তাদের দুর্নীতি, অনিয়ম, বিশৃঙ্খলা এবং স্বেচ্ছাচারিতা চাপা দিতে আমার উপর এই অভিযোগ এনেছে। প্রশাসনের বিরুদ্ধে তাদের দুর্নীতির কথা তুলে ধরায় আমাকে এবং ছাত্রলীগকে কোণঠাসা করতে এই নোংরা ষড়যন্ত্রে লিপ্ত হয়েছে। এটা প্রশাসনের একটা স্বভাব। আমি উপাচার্য মহোদয়ের সাথে কথা বলেছি। বিষয়টা দেখার জন্য সময় নিয়েছেন উপাচার্য বলেও জানান তিনি।

#ইভান চৌধুরী, বেরোবি প্রতিনিধি।

পাঠকের মতামত