আইপিএলে জঙ্গি হামলা! ওয়াংখেড়ে স্টেডিয়ামসহ দুই জায়গা টার্গেট

ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লীগ (আইপিএল) আবারো সন্ত্রাসী হামলার আশংকায় আছে। ভারতের আইনশৃঙ্খলা বাহিনী আইপিএলে জঙ্গি হামলার পরিকল্পনার কথা জানতে পেরেছে। তাই গোটা ভারতেই জোরদার করা হয়েছে কঠোর নিরাপত্তা ব্যবস্থা।

ভারতের গোয়েন্দা সূ্ত্র থেকে জানা যায়, কয়েকজন জঙ্গিকে জিজ্ঞাসাবাদ করে আইপিএলে নাশকতা চালানোর ব্যাপারে জানা গেছে। মুম্বাইয়ে আইপিএলের কোনো ম্যাচ চলাকালে হামলার পরিকল্পনা করছিল জঙ্গিরা। বিগত দেড় বছরে ভারতের আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী ব্যাপক পরিমাণ জঙ্গিদের আটক করেছে। সম্প্রতি জিজ্ঞাসাবাদে সেই জঙ্গিরা জানায়, স্টেডিয়াম থেকে ক্রিকেটাররা হোটেলে যাওয়ার পথে কিংবা হোটেল থেকে স্টেডিয়ামে যাওয়ার পথে তাদের উপর হামলার ছক কষেছিল সন্ত্রাসীরা।

শুধু তা-ই নয়, হোটেল ট্রাইডেন্ট থেকে মুম্বাইয়ের বিখ্যাত ওয়াংখেড়ে স্টেডিয়াম পর্যন্ত কয়েক দফা রেইকিও করে জঙ্গিরা। কোথায় কীভাবে হামলা করা যেতে পারে তাও ঠিক করার প্রক্রিয়া শুরু হয়ে গিয়েছিল বলে জানিয়েছে জিজ্ঞাসাবাদে। জঙ্গিদের দেওয়া এই তথ্যের ভিত্তিতে ইতোমধ্যে সতর্ক অবস্থান নিয়েছে ভারতের আইন শৃঙ্খলা রক্ষাকারী গোষ্ঠীগুলো। মুম্বাই পুলিশকে নিরাপত্তা বাড়াতে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। প্রতিটি হোটেল এবং স্টেডিয়ামের আশপাশের এলাকায় বাড়তি পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

ক্রিকেটারদের যেকোনো ধরনের অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনা থেকে দূরে রাখতে অতুয়াধুনিক মার্কসম্যান কমব্যাট ভেহিকল আশ্রয় নেওয়া হচ্ছে। এমনকি নিরাপত্তারক্ষীর প্রহরা ছাড়া ক্রিকেটারদের হোটেলের বাইরে যেতে বারণ করেছে কর্তৃপক্ষ।

শনিবার ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগের হাই ভোল্টেজ ম্যাচে মুখোমুখি হবে মুম্বাই ইন্ডিয়ান্স ও রাজস্থান রয়্যালস, আর এই ম্যাচের ভেন্যু মুম্বাইয়ের ওয়াংখেড়ে স্টেডিয়াম। এই ম্যাচ চলাকালে জঙ্গি গোষ্ঠী যাতে কোনো হামলা চালাতে না পারে তা নিশ্চিত করতে প্রায় নির্ঘুম সময় কাটাচ্ছে মুম্বাই পুলিশ। যদিও তারা জঙ্গিদের হামলার পরিকল্পনার খবরকে গুজব বলে আখ্যায়িত করছে। তবে নিরাপত্তা নিশ্চিতকরণে কোনো কমতি রাখছেন না তারা।

এ বিষয়ে মুম্বাই পুলিশের জনসংযোগ কর্মকর্তা মঞ্জুনাথ সেঞ্জে বলেন – এটি ভূয়া ও বানোয়াট খবর। এর কোনো ভিত্তি নেই, একেবারে গুজব। গোয়েন্দাদের তদন্তে এই ধরনের কোনো হামলার কথা পাওয়া যায়নি। জনগণকে সদা সুরক্ষিত রাখতে আমরা তৎপর।’

পাঠকের মতামত