উলিপুর ও চিলমারীতে সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষকদের মানববন্ধন

কুড়িগ্রামের উলিপুরে ১১তম গ্রেডে বেতন স্কেল প্রদানের দাবীতে মানববন্ধন করেছে সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষকবৃন্দ। বৃহস্পতিবার বিকেল ৩টায় উপজেলা পরিষদ চত্ত্বরে মানববন্ধনে উপজেলার শতাধিক সহকারী শিক্ষক অংশ নেয়।
মানববন্ধন চলাকালে বক্তব্য রাখেন, নারিকেলবাড়ি সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক জোবায়দুল ইসলাম, সহকারী শিক্ষক হাফিজুর রহমান সেলিম, সহকারী শিক্ষক জীবন কৃষ্ণ রায়, সহকারী শিক্ষক আঃ ওয়াদুদ প্রামানিক, সহকারী শিক্ষক ফিরোজ আলম মন্ডল, সহকারী শিক্ষক খ.ম রেজাউল করিম প্রমূখ।
এসময় বক্তরা বেতন বৈষম্য নিরসন করে অবিলম্বে ১১তম গ্রেডে সহকারী শিক্ষকদের বেতন প্রদানের দাবী জানান। মানববন্ধনে সহকারী শিক্ষকদের ন্যায় সংগত দাবীর সাথে সহমত পোষণ করে বক্তব্য রাখেন, উলিপুর প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর আলম সরদার।
এ ব্যাপারে উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ আব্দুল কাদের বলেন, সহকারী শিক্ষকদের দাবী সম্বলিত স্বারকলিপি সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের নিকট প্রেরণ করা হবে।
এদিকে, প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকের পরের গ্রেড ১১তম গ্রেডে বেতনের দাবিতে কুড়িগ্রামের চিলমারীতে মানববন্ধন করেছেন সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষকরা। বৃহস্পতিবার বিকেলে উপজেলা পরিষদের সামনে রাস্তায় এ মানববন্ধন করেন তারা।
ঘন্টাব্যাপী মানববন্ধনে উপস্থিত থেকে বক্তব্য রাখেন, শিক্ষক নেতা আশরাফুল আলম, একেএম মোখলেছুর রহমান, মিজানুর রহমান, জাহিদুল হাসান পলাশ, বুলবুল আহমেদ, ফরিদা ইয়াছমিন প্রমুখ। উপজেলার ৯৩টি সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষকরা মানববন্ধনে অংশ গ্রহণ করেন।
Untitled

ছবি: কুড়িগ্রামের চিলমারীতে সহকারি শিক্ষকদের ১১তম গ্রেডের দাবিতে মানববন্ধন।

মানববন্ধনে নেতারা জানান, গত পে-স্কেল থেকে সহকারী শিক্ষকরা চারটি গ্রেডের বেতন বৈষম্যের শিকার হচ্ছেন।নির্বাচনী ইস্তেহারে প্রধানমন্ত্রী সহকারী শিক্ষকদের ন্যায্যতার ভিত্তিতে বৈষম্য নিরসনের আশ্বাস দিয়েছিলেন। সেই আশ্বাস দ্রুত বাস্তবায়নের দাবি জানান তারা। সেই সাথে চিলমারী উপজেলাকে চরাঞ্চল উপজেলা ঘোষনার দাবী জানান শিক্ষকরা।
মানববন্ধন শেষে শিক্ষক নেতারা একটি বিক্ষোভ মিছিল নিয়ে উপজেলা নির্বাহী অফিসারের কার্যালয়ে যান। সেখানে উপজেলা নির্বাহী অফিসার শাহ মোঃ শামসুজ্জোহার মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রী বরাবর স্মারকলিপি পেশ করেন শিক্ষকরা।
#মমিনুল ইসলাম বাবু, কুড়িগ্রামপ্রতিনিধি।

 

পাঠকের মতামত