চুলায় পুড়িয়ে ফেলা হয় জামাল খাসোগির লাশ: আল জাজিরা

ছবি - আল জাজিরা।

গতবছরের অক্টোবর মাসে তুরস্কের সৌদি  কনস্যুলেটে নিখোঁজ হওয়া সৌদি সাংবাদিক জামাল খাশোগির মৃতদেহ পুড়িয়ে ফেলা হয়েছিলো। এমন তথ্য উঠে এসেছে কাতার-ভিত্তিক গণমাধ্যম ‘আল জাজিরা’র তদন্তে।

গত রোববার আল জাজিরার আরবি সংস্করণে  প্রচারিত এক ডকুমেন্টারিতে একটি ঘাতক দলের হাতে এই সাংবাদিকের নিহত হওয়া সম্পর্কে নতুন এসব তথ্য জানানো হয়।

এতে বলা হয়, ইস্তাম্বুলে সৌদি কনস্যুলেট জেনারেলের বাসার একটি বড় চুলায় পুড়িয়ে ফেলা হয় ওই সাংবাদিককে। তুর্কি কর্তৃপক্ষ চুলাটি পর্যবেক্ষণ করেছে বলেও জানানো হয়েছে এতে।

ওই ডকুমেন্টারিতে আরও বলা হয়, যেহেতু কনস্যুলেট থেকে বের করা ব্যাগটিতে গত ২ অক্টোবর নিহত খাশোগির মরদেহ ছিল বলে মনে করা হচ্ছে, সেহেতু সেটি কয়েকশ’ মিটার দূরে অবস্থিত সৌদি কনস্যুলের বাসায় নেয়া অস্বাভাবিক নয়।

এই চুলা যিনি নির্মাণ করেছেন,  তিনি ওই গণমাধ্যমটিকে জানান, এটি সৌদি কনস্যুলের নির্দেশ অনুসারে নির্মাণ করা হয়। বলা হয়, এটি গভীর এবং ১০০০ ডিগ্রি সেলসিয়াস তাপমাত্রা উৎপন্নকারী হতে হবে যেন ধাতুনির্মিত কোনও কিছু গলানো যায়।

জামাল খাসোগি

তুর্কি কর্তৃপক্ষের মতে, সৌদি সাংবাদিকের লাশ পুড়িয়ে ফেলা ঢাকতে ঘটনার পর চুল্লিটিতে কয়েক ব্যাগ মাংসও রান্না করা হয়েছে। পুড়ে নিঃশেষ হওয়া খাশোগির দেহাবশেষ তিনদিন পর সেখান থেকে সরানো হয়।

সৌদি কনস্যুলের কার্যালয়ের দেয়ালে লেগে যাওয়া খাশোগির রক্ত ঢাকতে দেয়ালটি রঙ করে ঘাতক দলটি। এই রঙ সরিয়ে তার রক্তের চিহ্ন পাওয়া গেছে। বলেও জানায় তুর্কি তদন্তকারীরা।

এই ডকুমেন্টারি তৈরি করা হয়, নিরাপত্তা কর্মকর্তা, রাজনীতিক, এবং খাশোগির কিছু তুর্কি বন্ধুদের সাক্ষাৎকারের ভিত্তিতে।

পাঠকের মতামত