ঠাকুরগাঁওয়ে প্রেমের টানে ঘর ছাড়লেন তিন সন্তানের জননী

প্রেম মানেই ভুলে যাওয়া সবকিছু। প্রেমে জড়ালেই স্বামী, সন্তান, পরিবার কাউকেই আর মনে থাকে না। শুধু মনের মধ্যে বসবাস করে প্রিয় মানুষটি। আর এই প্রিয় মানুষটিকে কাছে পেতেই সবকিছু ফেলে পাড়ি জমান অচেনা এক দেশে। এমনই একটি ঘটনা ঘটেছে ঠাকুরগাঁওয়ে। প্রেমের টানে স্বামী-সন্তান ফেলে রেখে প্রেমিকের হাত ধরে চলে গেছেন ৩৫ বছরের এক গৃহবধু।

১৩ দিনেও গৃহবধু শাহানাজ বেগমের খোঁজ না পেয়ে স্বামী জবায়দুর রহমান ঠাকুরগাঁও সদর থানায় একটি অভিযোগ করেছেন।

অভিযোগে বলা হয়, প্রায় ১৫ বছর আগে জবায়দুর রহমানের সঙ্গে বিয়ে হয় শাহানাজ বেগমের। বর্তমানে তাদের ঘরে তিনটি সন্তান রয়েছে। দুই ছেলে ও এক মেয়ের মধ্যে বড় সাজ্জাদ হোসেন সমির জমিদারপাড়া হফেজিয়া মাদ্রাসায় লেখাপড়া করছেন, মেজো ছেলে সোহানুর হোসেন জিহাদ বিআখড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ৪র্থ শ্রেণির শিক্ষার্থী  ও কন্যা সন্তান ছাদিয়া আক্তার জিনিয়া।

প্রতিবেশি সোহাগের সঙ্গে তিন সন্তানের জননী শাহানাজ বেগমের প্রেমের সম্পর্ক গড়ে উঠে। গত ২৮ জানুয়ারি ফুসলিয়ে প্রতিবেশি সোহাগ গৃহবধু শাহানাজকে নিয়ে পালিয়ে যায়। পরিবারের লোকজন অনেক খোঁজাখুজি করেও গৃহবধুকে আর পায়নি।
জবায়দুর রহমান বলেন, প্রতিবেশি সোহাগ আমার স্ত্রীকে নিয়ে পালিয়েছে। এখন আমরা তিনটি সন্তান তাদের মায়ের পথ চেয়ে রয়েছে এবং অঝরো চোখের পানি ফেলছে। পুলিশ আমার স্ত্রীকে দ্রুত আমাদের কাছে ফিরিয়ে দিবেন বলে তিনি আশা করেন।

এদিকে প্রতিবেশি সোহাগের বাড়িতে যোগাযোগের চেষ্টা করা হলে কেউ কথা বলতে রাজি হয়নি।

এ বিষয়ে অভিযোগের তদন্তকারী কর্মকর্তা ঠাকুরগাঁও সদর থানার এসআই আবুল কালাম বলেন, আমরা চেষ্টা করছি গৃহবধুকে উদ্ধারের জন্য।

#জুনাইদ কবির, ঠাকুরগাঁও জেলা প্রতিনিধি।

পাঠকের মতামত