আপনি কি বেশি রাগী? জানেন না রাগ কমানোর উপায়?

রাগ একটি মানবীয় অনুভূতি এবং রাগ সবারই হয়। কিন্তু সেই রাগের বশবর্তী হয়ে নিজের বা অন্য কারো ক্ষতি হোক সেটা নিশ্চয় কেউ চাইবেন না। তাছাড়া অতিরিক্ত রাগ আমাদের অন্যান্যদের সাথে সম্পর্ক ও নিজের স্বাস্থ্য উভয়ের উপরই প্রভাব ফেলে। তাই আমাদের উচিত অতিরিক্ত রাগ নিয়ন্ত্রণে রাখার চেষ্টা করা।

কিন্তু কীভাবে রাগ কমাতে হয় সেটি জানেন না? জেনে নিন, রাগ কমানোর কিছু সহজ পদ্ধতি।

১। শারীরিকভাবে রাগের প্রকাশ ঘটাবেন না। কারণ, এইধরণের রাগের প্রকাশ আমাদের রাগকে আরো বাড়িয়ে তোলে। যদিও এ ক্ষেত্রে অনেকে বলে থাকেন যে, ‘কিছু না করলে মাথা ঠান্ডা হয় না’। কিন্তু এমন করলেও তো রাগ কমে না। ভালো ফল পাওয়া যায় না। প্রয়োজন – নিজেকে একটু সময় দেবার, শান্ত হবার, তাহলেই দেখা যাবে কিছু না করেই আমরা খুব সুন্দর করে আমাদের রাগকে নিয়ন্ত্রণে নিয়ে আনতে সক্ষম হবো।

২। রাগ দমিয়ে রাখতে গেলেও রাগ বাড়ে। এটি করবেন না। আমাদের মধ্যে অনেককেই দেখা যায় প্রচন্ড রাগ উঠলেও নিজেকে দমিয়ে রাখতে চেষ্টা করে। দাঁতে দাঁত চেপে কাউকে কিছু বলে কিংবা কোনো ধরনের বাকবিতন্ডায় না জড়িয়ে চুপ করে সব কিছু সহ্য করার চেষ্টা করে। কিন্তু রাগ চেপে রাখলে সেই রাগের কারণ মনের মধ্যে স্থায়ীভাবে থেকে যায়, তিক্ত অনুভূতি রয়ে যায় সেই ব্যক্তিকে নিয়ে। এ ক্ষেত্রে আমরা যদি রাগ চেপে না রাখি, তাহলে মানসিক শান্তির পাশাপাশি পারস্পরিক বন্ধনও শক্তিশালী হয়। যার উপর যে বিষয়টি নিয়ে আপনি রাগান্বিত, সেটি খুলেও বলার চেষ্টা করুন। আলোচনার মাধ্যমে সমাধান ঘটুক।

৩। মন অন্যদিকে ডাইভার্ট করার চেষ্টা করুন। আমরা যদি আমাদের রাগের মুহূর্তে আমাদের চিন্তা অন্যদিকে সরিয়ে নেই, তাহলেই সেই রাগের বহিঃপ্রকাশ হবে অনেক কম। আমরা সেইক্ষেত্রে কোনো হাসির কথা টেনে আনতে পারি কিংবা অন্য কোনো টপিকে কথা বলতে পারি। অথবা আমরা পারি কিছু সময়ের জন্য সেই তর্ক থেকে সরে যেতে।

‌৫। বিষয়টি অন্যভাবে দেখার চেষ্টা করুন। অধিকাংশক্ষেত্রেই আমরা একজনের রাগ অন্যের উপর ঝেড়ে থাকি। বাবা অফিসের রাগ মার উপর ঝাড়লো, মা সেটা সন্তানের উপর, সন্তান স্কুলে গিয়ে ঝগড়া করে বসলো তার বন্ধুর সাথে, এগুলো কিন্তু নিত্য-নৈমিত্তিক ঘটনা।আর তাই আমরা যদি একটু অন্যের প্রতি সহানুভূতির দৃষ্টি রেখে ভাবতে শিখি, তাহলে রাগের বিস্ফোরন তো অবশ্যই, রাগ নিয়ন্ত্রণও অনেক সহজ হয়ে যায়।

৬। তৃতীয় ব্যক্তির সাহায্য নিতে পারেন। দীর্ঘ দিনের চাপানো রাগের ফলে কখনো কখনো বড়রকম অঘটনও ঘটে যেতে পারে। তাই নিজের রাগ নিজেই কোনোভাবে নিয়ন্ত্রণ না করতে পারলে, প্রয়োজনে পরিবার পরিজন বা বন্ধুমহলের কাছের কারো সাথে খোলামেলা আলাপ করুন। ডাক্তারের পরামর্শও গ্রহণ করতে পারেন। ডাক্তারের পরামর্শমত বিভিন্ন থেরাপি এক্ষেত্রে দারুণ কাজে দেয়।

Agami Soft. - Inventory Management System

পাঠকের মতামত