স্প্যানিশ ভাষায় প্রকাশিত হলো বঙ্গবন্ধুর ‘অসমাপ্ত আত্মজীবনী’

জাতির জনক বঙ্গবন্ধুর শেখ মুজিবুর রহমানের আত্মজীবনী ‘অসমাপ্ত আত্মজীবনী’ স্প্যানিশ ভাষায় প্রকাশিত হয়েছে। স্প্যানিশ ভাষায় অনূদিত সংস্করণের মোড়ক উন্মোচন করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এ সময় তিনি অারো বলেন, এ পর্যন্ত বাংলা, ইংরেজি, হিন্দি, চীনা, জাপানি, ফরাসি, উর্দু, আরবি ও স্প্যানিশসহ ১০ ভাষায় প্রকাশিত হয়েছে। এছাড়া রুশ ভাষাসহ বেশ কয়েকটি ভাষায় অনুবাদের কাজ চলছে।

অনুষ্ঠানে তিনি বলেন, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের আত্মজীবনীর ওপর প্রকাশিত বইগুলো ভবিষ্যতে গবেষণার বড় খোরাক হবে। শুধু তাই নয় এই বইটি পড়ে তার জীবন ও এই উপমহাদেশের রাজনীতি সম্পর্কে জানা যাবে।

গণভবনে আজ সকালে ঢাকায় নিযুক্ত স্পেন দূতাবাসের উদ্যোগে আয়োজিত অনুষ্ঠানে মোড়ক উন্মোচন করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

এসময় প্রধানমন্ত্রী বলেন, যত বেশি ভাষা সাহিত্যের চর্চা হবে তত বেশি সংস্কৃতির বিকাশ হবে। এই বই স্বাধীন বাংলাদেশের অভ্যুদয়ের ইতিহাস স্মরণ করিয়ে দেবে। অনুষ্ঠানে বাংলাদেশ স্পেনের রাষ্ট্রদূত, সেদেশের সরকার ও জনগণকে ধন্যবাদ জানিয়ে তিনি বলেন, এটা আমাদের জন্য গৌরবের এবং খুবই আনন্দের। বইটির অনুবাদ ও সম্পাদনার সঙ্গে যুক্ত সকলের প্রতি আমি কৃতজ্ঞতা জানাচ্ছি।

তিনি আরো বলেন, জাতির জনক বাংলা ভাষার পর সবচেয়ে মিষ্টি ও শ্রুতিমধুর ভাষা বলতেন স্প্যানিশ ভাষাকে। সেই ভাষায় তার অসমাপ্ত আত্মজীবনী অনূদিত হয়েছে। এতে আমি অত্যন্ত খুশি। আমি মনে করি, আমরা পারস্পরিক সাহিত্য যতো বেশি জানবো, নিজেদের সাংস্কৃতিক চর্চা যতো হবে, তত বেশি নিজেদের সমৃদ্ধ করতে পারবো।

অনুষ্ঠানে স্পেনের রাষ্ট্রদূত ড. আলভারো ডি সালাস্ গিমেনেজ ডি আজকারাতে বলেন, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে স্প্যানিশ দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ব্যবহৃত ভাষা। এই বই প্রকাশের ফলে বিশ্বের প্রায় ৪৩ কোটি ৭০ লাখ স্প্যানিশ ভাষাভাষী জনগোষ্ঠী বঙ্গবন্ধুর গৌরবময় জীবন ও কর্ম সম্পর্কে জানতে পারবেন।

উক্ত অনুষ্ঠানে এ সময় অন্যদের মধ্যে সংস্কৃতিমন্ত্রী আসাদুজ্জামান নূর, প্রধানমন্ত্রীর উপদেষ্টা গওহর রিজভী, পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহারিয়ার ও বঙ্গবন্ধু মেমোরিয়াল ট্রাস্টের সদস্য সচিব শেখ হাফিজুর রহমান উপস্থিত ছিলেন।

এই ‘অসমাপ্ত আত্মজীবনী’র স্প্যানিশ অনুবাদক বেঞ্জামিন ক্লার্ক। ২০১২ সালের ১৮ জুন অসমাপ্ত আত্মজীবনী মূল বাংলা ভার্শন প্রকাশিত হয়।

এই অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন মূখ্য সচিব মো. নজিবুর রহমান।

পাঠকের মতামত