ধর্ম সম্পর্কে ওয়াকিফহাল না থাকায় মেধাবী শিক্ষার্থীরা জঙ্গিবাদে জড়াচ্ছে : রাবি উপাচার্য

‘বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ুয়া মেধাবী শিক্ষার্থী যারা ভর্তিযুদ্ধের মাধ্যমে এই বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি হয়। তারা কিসের মোহে পড়ে জঙ্গিবাদে জড়িয়ে পড়ছে। কেন তারা ড্রাগ এ্যাডিকটেট কিংবা ধর্মীয় উগ্রবাদ কিংবা জঙ্গিবাদে জড়াচ্ছে। আমরা আমাদের পাঠ্যপুস্তক থেকে শুরু করে খেলাধুলা-নাটক সবই করি। কিন্তু ধর্ম সম্পর্কে জানতে জানি না। প্রত্যেকের নিজ নিজ ধর্ম সম্পর্কে জানা দরকার। নিজ নিজ ধর্ম সম্পর্কে ওয়াকিফহাল না থাকায় বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ুয়া মেধাবী শিক্ষার্থীরা জঙ্গিবাদে জড়িয়ে পড়ছে।’

আজ বুধবার সকালে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের (রাবি) বিভিন্ন বিভাগের শিক্ষার্থীর অংশগ্রহণে ‘ইয়ূথ সার্কেল’ ও ‘গোল্ড বাংলাদেশ’র আয়োজনে দুই দিনব্যাপী ‘বিতর্ক উৎসব’র উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে উপাচার্য অধ্যাপক এম আব্দুস সোবহান এসব কথা বলেন।

উপাচার্য বলেন, ‘বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের একাডেমিক শিক্ষার পাশাপাশি নৈতিক শিক্ষায় শিক্ষিত হতে হবে। এজন্য বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকদের ক্লাসে একাডেমিক পাঠদানের পাশাপাশি অন্তত ৫ মিনিট নৈতিকতা নিয়ে আলোচনা করা উচিত।’

সকাল পৌনে ১০টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের ডিনস কমপ্লেক্স’র সম্মেলন কক্ষে অনুষ্ঠিত বিতর্ক উৎসবের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের উপ-উপাচার্য অধ্যাপক আনন্দ কুমার সাহা ও ছাত্র উপদেষ্টা অধ্যাপক ড. লায়লা আরজুমান বানু। এসময় সেন্টার ফর কমিউনিকেশন অ্যান্ড ডেভেলপমেন্ট (সিসিডি) বাংলাদেশের যুগ্ম-পরিচালক শাহানা পারভীন অনুষ্ঠানের সভাপতিত্ব করেন।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের পর ডিন্স কমপ্লেক্স ভবনের সামনে থেকে একটি জমকালো আনন্দ র‌্যালি বের করা হয়। র‌্যালিটি ক্যাম্পাসের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে পূর্বের স্থানে ফিরে আসে। পরে দুপুর আড়াইটা থেকে ডিনস কমপ্লেক্সের সম্মেলন কক্ষে বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন বিভাগের ১৬টি বিতার্কিক দল অংশগ্রহণ করে। সন্ধ্যা পর্যন্ত বিতর্ক উৎসবের প্রথম রাউন্ড অনুষ্ঠিত হয়। আজ বৃহস্পতিবার বিশ্ববিদ্যালয়ের শহীদ মিনার মুক্তমে বিতর্ক উৎসবের সেমি ফাইনাল ও ফাইনাল রাউন্ড অনুষ্ঠিত হবে।

দুই দিনব্যাপী এ বিতর্ক অনুষ্ঠানটির সার্বিক সহযোগিতায় রয়েছে ‘ডেমোক্রেসি ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশ’ ও ‘সিসিডি বাংলাদেশ’। উল্লেখ্য, বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের মাঝে ‘শান্তি’ ও ‘সহনশীলনতা’র পরিবেশ রক্ষায় ধর্মীয় উগ্রবাদ নির্মুলে বিভিন্ন সচেতনতামূলক কর্মকাণ্ডের অংশ হিসেবে মূলত এ বিতর্ক প্রতিযোগিতাটি অনুষ্ঠিত হচ্ছে। যেখানে বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন বিভাগের ১৬টি দল অংশগ্রহণ করেছে।

এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে সিসিডি বাংলাদেশের কো-অর্ডিনেটর হাসান তানভীর জানান, ডেমোক্রেসি ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশের অর্থায়নে ”এনগেজিং ইয়ুথ পিপল এগেন্সট ভায়োলেন্ট এক্সট্রিমিজম এন্ড রিলিজিয়াস মিলিটেন্সি” শীর্ষক পাইলট প্রজেক্টের আওতায় মহানগরীর অভ্যন্তরীণ রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়, রাজশাহী কলেজ, বরেন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয় ও নর্থ বেঙ্গল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি’র শিক্ষার্থীদের মাঝে উগ্র ও জঙ্গিবাদবিরোধী বিভিন্ন সচেতনতামূলক কার্যক্রম পরিচালিত হচ্ছে। এই কর্মসূচি চলতি বছরের ডিসেম্বর পর্যন্ত চলবে। তারই অংশ হিসেবে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের মাঝে সচেতনতামূলক কর্মকাণ্ডের অংশ হিসেবে এই ‘বিতর্ক উৎসব’ অনুষ্ঠিত হচ্ছে।

#তানভীর ইসলাম, রাবি প্রতিনিধি।

পাঠকের মতামত