স্তন ক্যান্সারের কারণ ও লক্ষণ : ঝুঁকিমুক্ত নন পুরুষরাও!

পৃথিবীর সব দেশেই নারীর জন্য এক নীরব ঘাতক স্তন ক্যান্সার। এই গোপন ব্যাধির শিকার হয়ে প্রতি বছর প্রাণ হারান হাজার হাজার নারী। বাংলাদেশেও দিন দিন বাড়ছে স্তন ক্যান্সারে আক্রান্ত হওয়ার প্রবণতা। সাধারণত চিকিৎসকের কাছে যেতে অনীহা, নিজের ও পরিবারের অবহেলার কারণেই এর প্রবণতা বৃদ্ধি পেয়েছে। আজ ১০ অক্টোবর; স্তন ক্যান্সার সচেতনতা দিবস। সারাদেশে আজ পালন করা হচ্ছে স্তন ক্যান্সার সচেতনতা দিবস।

বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকদের তথ্য মতে, ক্যান্সার আক্রান্ত নারীদের মধ্যে স্তন ক্যান্সারের অবস্থান দ্বিতীয়। তবে ৯০ শতাংশ ক্ষেত্রেই সচেতনতা ও সময়মতো চিকিৎসা বাঁচিয়ে তুলতে পারে রোগীকে এবং দিতে পারে সুস্থ-স্বাভাবিক জীবন।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার তথ্য অনুযায়ী, প্রতিবছর বিশ্বজুড়ে ১৫ লক্ষাধিক নারী স্তন ক্যান্সারে আক্রান্ত হয়ে থাকেন এবং প্রতি লাখে ১৫ জন মারা যান।

আর বাংলাদেশে স্তন ক্যান্সার চিকিৎসা এবং এ বিষয়ে সচেতনতার কাজে সম্পৃক্ত চিকিৎসকরা বলছেন, প্রতিবছর প্রায় ১৮ হাজার নারী নতুন করে স্তন ক্যান্সারে আক্রান্ত হয়ে থাকেন। আর মৃত্যুমুখে পতিত হচ্ছেন ৮ হাজারের বেশি নারী। নারীরা অতিরিক্ত ঝুঁকিতে থাকলেও, পুরুষরাও স্তন ক্যান্সারের ঝুঁকিমুক্ত নন।

>>>>>আরো পড়ুন  ঃ স্তন ক্যান্সার সচেতনতা দিবস আজ

আর এই ঝুঁকি থেকে মুক্তির প্রধান উপায় হল নারী-পুরুষ নির্বিশেষে সবার মধ্যে স্তন ক্যান্সার সম্পর্কে ব্যাপক সচেতনতা গড়ে তোলা। স্তন ক্যান্সার কী কারণে হয়ে থাকে বা এর লক্ষণগুলো কী কী তা জানা জরুরি। চলুন তবে জেনে নেয়া যাক স্তন ক্যান্সারের কারণ ও লক্ষণগুলি।

স্তন ক্যান্সারের কারণ :

  • স্তন ক্যান্সারের পারিবারিক ইতিহাস থাকলে পরবর্তী প্রজন্মের মধ্যে এটি হওয়ার সম্ভাবনা অনেক বেশি থাকে।
  • অবিবাহিতা বা সন্তানহীনা নারীদের মধ্যে স্তন ক্যান্সার হওয়ার সম্ভাবনা বেশি।
  • যে সব নারীরা সন্তানকে কখনো স্তন্যপান করাননি তাদের স্তন ক্যান্সার হওয়ার সম্ভাবনা অনেক বেশি।
  • ৩০ বছরের পরে যারা প্রথম মা হয়েছেন তাদের স্তন ক্যান্সার হওয়ার সম্ভাবনা বেশি।
  • যাদের তুলনামূলক কম বয়সে পিরিয়ড শুরু হয় ও দেরিতে বন্ধ হয় তাদের স্তন ক্যান্সার হওয়ার সম্ভাবনা বেশি।
  • একাধারে ১০ বছর বা বেশি সময় ধরে জন্ম নিরোধক পিল খেলেও স্তন ক্যান্সারের ঝুঁকি বেড়ে যায়।

মনে রাখা জরুরী যে, এই কারণগুলো স্তন ক্যান্সারের সহায়ক ভূমিকা পালন করে মাত্র, কোনোটি একক কারণ নয়। বয়স বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে যেহেতু স্তন ক্যান্সারের ঝুঁকি বাড়তে থাকে, তাই একটা নির্দিষ্ট বয়সের পর থেকে (৩০ বছর) সতর্কতা অবলম্বন জরুরি। আর এ জন্য স্তন ক্যান্সারের প্রাথমিক লক্ষণগুলো জানা খুবই প্রয়োজন।

স্তন ক্যানসারের লক্ষণ :

  • স্তনের বোটা থেকে কিছু বের হওয়া।
  • স্তনের ভিতর চাকা অনুভব করা।
  • স্তনে ব্যাথা অনুভব করা।
  • স্তনের আকার পরিবর্তিত হওয়া।
  • স্তনের ত্বকে ঘাঁ দেখা দেওয়া।
  • স্তনের ত্বকে লালচে ভাব/দাগ দেখা দেওয়া।

এই লক্ষণগুলোর যে কোনও একটি দেখা দেওয়ার সঙ্গে সঙ্গে বিশেষজ্ঞ ডাক্তারের পরার্মশ অত্যন্ত জরুরি।

পাঠকের মতামত