‘আকাশবীণার’ জরুরী দরজা ভাঙার ঘটনায় তদন্ত কমিটি

নতুন প্রযুক্তি সমৃদ্ধ বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সে যোগ হওয়া ‘আকাশবীণার’ জরুরি দরজার একটি অংশ ভেঙে পড়ার ঘটনায় তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। গতকাল সকালে এ ঘটনা ঘটলে তখনই সিঙ্গাপুরের ফ্লাইটে বিলম্ব হয়।

আজ বুধবার বেসরকারি বিমান ও পর্যটন মন্ত্রণালয়ে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এ কথা জানান মন্ত্রণালয়ের সচিব মো. মহিবুল হক।

তিনি বলেন, ‘ঘটনাটি আংশিক সত্য। দরজা ভেঙে পড়েনি। তবে, ইমারজেন্সি বাটনে চাপ দেওয়ায় এটা খুলে গেছে। ভুল বাটনে চাপ দেয়ার কারনে এমনটি হয়েছে।

তবে, এ বিষয়ে কোনো মন্তব্য করতে চাননি বেসরকারি বিমান ও পর্যটন মন্ত্রী এ কে এম শাহজাহান কামাল।

বিমানের একটি সূত্র জানায়, গতকাল সকালে সিঙ্গাপুরের উদ্দেশে উড়ালের আগে যাবতীয় প্রস্তুতি চলছিল ড্রিমলাইনার বোয়িং ৭৮৭ ‘আকাশবীণা’র। এ সময় বোর্ডিং ব্রিজে যুক্ত থাকা বিমানটিতে খাবার তোলা হচ্ছিল। তখনই ভুল বাটনে চাপ পড়ে জরুরি দরজা খুলে যায়।

কোনো কারণে বিমান জরুরি অবতরণ করলে যাত্রীদের জরুরিভিত্তিতে নামানোর জন্য এই ধরনের স্বয়ংক্রিয় দরজা ব্যবহার করা হয়। এ ধরনের দরজা একবারই ব্যবহার করা যায়। একে যান্ত্রিক ভাষায় বলা হয় র‍্যাফট।

গত ৫ সেপ্টেম্বর ‘আকাশবীণা’র উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। বিমান কর্তৃপক্ষ বলছে, বাংলাদেশে এটিই সর্বাধুনিক প্রযুক্তি সংবলিত উড়োজাহাজ।

পাঠকের মতামত