বিচিত্র জীবন, আমি জিতবোই

সমাধান চাইলেই কি মেলে? যে সমাধান নিজেকে নিভিয়ে দেয় সেটা কি সমাধান? যে তুমি প্রতিদিন নিজেকে শেষ করছো কিসের জন্য? কার জন্য? তুমি কি ভুলে গেছো তুমি কিভাবে পৃথিবীতে এসেছিলে? কিছুই তো চাইতে পারতে না, বলতেও পারতে না তবুও বাবা-মা তোমার ভাষা বুঝে নিলো।
এখনো প্রতি মাসে তোমার ভাষাটা প্রথম তারাই বোঝে, অন্যরা কি তোমার নিশ্বাস বুঝতে পারে? তুমি ঘোরের ভেতর আছো, যেমনটি নেশাগ্রস্থ কেউ থাকে। তুমি নিজেকে হারিয়ে ফেলেছো, তোমার পৃথিবীটা সংকুচিত করে ফেলেছো। তুমি বৃষ্টি দেখো না, তুমি শিউলি বা বকুলের ঘ্রাণ নাও না, তুমি কৃষ্ণচূড়া দেখো না, তুমি মানুষের হাসি দেখো না, তুমি পূর্ণিমা দেখো না, জোনাক জ্বলা রাতে তুমি কবিতা পড় না, তুমি রবীন্দ্র সংগীত শোনো না, তুমি শরৎচন্দ্র পড় না, তুমি বিশ্বের খবর রাখো না, তুমি দেশের ক্রিকেটের জয়ে বাঁধ ভাঙা আনন্দ থেকে নিজেকে বিরত রাখো, তুমি নারী ফুটবলার বা ক্রিকেটারদের বিজয়গাধা সম্পর্কে খোঁজ রাখো না।
তুমি কি করেছো, সারাদিন নিজেকে কিসে ব্যস্ত রেখেছিলে? তোমার দায়িত্ব কি ছিল? কিছুই ভাবো নি, ভাবতে চাও না। তোমার জীবন কি ওয়ারেন বাফেটের চেয়েও চ্যালেঞ্জিং? তুমি কি পার্র না সে প্রশ্নের উত্তর খোজো নি, তুমি কি পারো তাও তুমি জানো না। এতো অজানা আর নিজেকে সবকিছু থেকে দূরে রাখলে তুমি তো জীবনের অর্থ খুঁজে পাবে না। তুমি জীবন মানেই পরাজিত হয়ে শেষ হয়ে যাওয়া ছাড়া কি চিন্তা করবে?
লিসেন! চোখ বন্ধ করে পাঁচটা মিনিট ভাবো তো আমি যেগুলি বললাম তুমি করো কি না! তুমি জীবনে সফলতা চাও, হ্যাঁ অবশ্যই সফলতা পাবে তার জন্য তোমাকে কিছু দায়িত্ব পালন করতে হবে। তুমি আজ থেকে নিজের ভালো লাগাকে সর্বোচ্চ গুরুত্ব দাও, নিজেকে তৈরি করার কঠিন শপথ নাও। মন খারাপ হবে, ভেঙ্গে পড়বা কিন্তু সাহস হারাবে না। মা-বাবা, পরিবারের ছবি ফোনে রাখো, মানিব্যাগে রাখো মন খারাপ হলে তাদের মুখগুলি দেখো। মন খারাপের কথাগুলি কাছের মানুষকে বলো, কবিতা পড়, গান শোনো, মুভি দেখো। মন খারাপ হলে, মানসিক চাপে থাকলে মাথাটা নষ্ট করার জন্য নেশা করো না। নেশা তোমাকে মুক্তি দেয় না, তোমার স্বাভাবিক চিন্তাকে নষ্ট করে তোমাকে অস্থির করে তোলে, তোমাকে খারাপ কাজ করতে উৎসাহিত করে।
জীবনে জয়ী হতে হলে তোমাকে চ্যালেঞ্জ নিতে হবে। তোমাকে জীবনের গল্প জানতে হবে। আমি বলবো না তুমি ডেল কার্ণেগী পড়, তুমি ইউটিউবে মোটিভেশনাল স্পিচ শোনো। আমি তোমাকে বলবো তুমি রেল স্টেশনে যাও, তুমি ফুটপাতে শুয়ে থাকা মানুষের কাছে যাও, তুমি শ্রমজীবী মানুষের কাছে যাও। তাদের প্রতিদিনের চ্যালেঞ্জ জয়ের গল্পগুলি শোনো। তুমি তো তাদের চেয়ে কখনো খারাপ অবস্থায় থাকো না তাহলে তুমি পরাজয়ের চিন্তা করো কেন? তুমি তো বিকলাঙ্গ না, তুমি একজন পূর্ণাঙ্গ মানুষ তাহলে অসম্পূর্ণ চিন্তা কেন করবা? তুমি পারো না, তুমি পারবে, তুমি পাও নি, তুমি পাবে, তুমি হেরে গেছো, তুমি জিতবে। তোমাকে তুমি নিজেকে আবিষ্কার করো। তোমার আইকন পৃথিবীতে তুমি, অন্যের আইকনও তুমি। তোমাকে তুমি হারিয়ে ফেলো না।
তুমি চাঁদে নতুন গ্রহ খুঁজে পাবার খবর জানো না। তুমি পাকিস্তানকে ১৪-০ গোলে হারিয়ে দেবার খবর জানো না, তুমি জানো না ক্রিকেটে সিরিজ জয়ের খবর, তুমি জানো না বাচ্চাদের আন্দোলনের পর বিআরটিএ তে লাইসেন্স নেবার জন্য ভীড় লেগে গেছে। তোমাকে জানতে হবে চারিদিকে সবাই জিতে যাচ্ছে তুমি কি পাগল না কি হেরে যাবা। চেষ্টা করো তুমিও পারবা আজ থেকে ভাবো আমি পাই নি, আমাকে পেতে হবে, আমি পারি না, আমাকে পারতে হবে, আমি হেরে গেছি, আমাকে জিততে হবে, আমি অনেকের কাছ থেকে অনেক কিছু নিয়েছি, তাদের কে সব ফেরত দিতে হবে।
বিশ্বাস রাখো তোমার ইতিবাচক চিন্তা তোমাকে নিরাশ করবে না, তুমি জিতবে, তোমার মাথার নাগ মণির সন্ধানে পুরো পৃথিবী তোমার পিছে ছুটবে। তুমি কি সে সময়টা না উপভোগ করেই হেরে যাবা?
মোহা. রাকিবুল ইসলাম, সাধারণ সম্পাদক, বঙ্গবন্ধু্ অাইন ছাত্র পরিষদ, ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় শাখা।

পাঠকের মতামত