খাদ্য বিষক্রিয়া, অসুস্থ শিক্ষার্থীদের দেখতে হাবিপ্রবির উপাচার্য

আব্দুর রউফ, হাবিপ্রবি: গত (৮ আগস্ট) দিনাজপুর হাজী মোহাম্মদ দানেশ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (হাবিপ্রবি) ডরমেটরি-২ (জিয়া হল) হলে বাটির খাবার খেয়ে  অসুস্থ হয়েছিল প্রায় ৪০ জন শিক্ষার্থী।

পরে তাদেরকে এম আব্দুর রহিম মেডিকেল ও দিনাজপুর সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

এর মধ্যে অনেকেই সুস্থ হয়ে ক্যাম্পাসে ফিরে আসলেও এখনো ৭ জন দিনাজপুর সদর হাঁসপাতালে ভর্তি আছে। এদিকে গতকাল রাতে ঢাকা থেকে ফিরেই আজ শুক্রবার সকালে অসুস্থ শিক্ষার্থীদের দেখতে সদর হাঁসপাতালে যান হাবিপ্রবির উপাচার্য প্রফেসর ড. মু. আবুল কাসেম।

তিনি তাদের সঙ্গে কিছুক্ষণ সময় কাটান ও চিকিৎসার খোঁজ খবর নেন এবং প্রয়োজনে সকল ধরনের সহযোগিতার আশ্বাস দেন। এসময় তার সঙ্গে ছিলেন পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক প্রফেসর ড. ভবেন্দ্র কুমার বিশ্বাস, প্রক্টর প্রফেসর ড. মো. খালেদ হোসেন এবং ছাত্র পরামর্শ ও নির্দেশনা শাখার পরিচালক প্রফেসর ড. মো. তারিকুল ইসলাম।

এদিকে তরিকুলের বাটি সার্ভিসের খাবার খেয়ে অসুস্থ হওয়ার ঘটনায় শিক্ষার্থীরা তদন্ত করে এসব অস্বাস্থ্যকর বাটির খাবারের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়ার দাবি জানিয়েছেন। তারা বলেন, প্রায় দিন এখন এই ধরনের ঘটনা ঘটছে ,তাই এসব বিষয়ে ক্যাম্পাস সংলগ্ন এলাকায় যারা বাটির ব্যবসা করেন তাদেরকে আইনের আওতায় না আনলে এসব আরো বৃদ্ধি পাবে।

এরপর উপাচার্য দিনাজপুরের এম আব্দুর রহিম মেডিকেল কলেজ যান, সেখানে সড়ক দুর্ঘটনায় আহত হাবিপ্রবির সেন্ট্রাল ফার্মের কর্মকর্তা মো. আহসান কবীর ও আর স্ত্রীর খোঁজ-খবর নেন । পাশাপাশি ম্যাসিভ হার্ট অ্যাটাক করে মেডিকেলে ভর্তি থাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের মালি মো. বাবলুর চিকিৎসার সার্বিক খোঁজ-খবর নেন তিনি।

পাঠকের মতামত