রাবিতে ঝিনাইদহ জেলা সমিতির ‘নবীন বরণ ও সাংস্কৃতিক সন্ধ্যা’ অনুষ্ঠিত

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে (রাবি) ঝিনাইদহ জেলা সমিতির ‘নবীন বরণ ও সাংস্কৃতিক সন্ধ্যা’ অনুষ্ঠিত হয়েছে। বুধবার (১১ জুলাই) বেলা ১২টায় কাজী নজরুল ইসলাম মিলনায়তনের সামনে অনুষ্ঠানের উদ্বোধন করেন ঝিনাইদহ শৈলকুপা আসনের এমপি আব্দুল হাই।

ঝিনাইদহ জেলা থেকে রাবিতে অধ্যয়ন করতে আসা শিক্ষার্থীদের স্বেচ্ছাসেবকমূলক সংগঠন এটি।

উদ্বোধন শেষে একটি আনন্দ র‌্যালি বের হয়ে ক্যাম্পাস প্রদক্ষিণ করে। র‌্যালি শেষে মিলনায়তনে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভার শুরুতে ঝিনাইদহ জেলার শিক্ষার্থী মরহুম লিপুর স্মরণে শোক প্রস্তাব পাঠ করেন গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের মাস্টার্সের শিক্ষার্থী গোলাম মোস্তফা।

এসময় জেলা সমিতির সভাপতি আশিকুর রহমানের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, রাবির উপাচার্য অধ্যাপক ড. আবদুস সোবহান, উপ-উপাচার্য অধ্যাপক আনন্দ কুমার সাহা, প্রধান আলোচক ছিলেন, ঝিনাইদহ জেলা মেয়র সাইদুল করিম মিন্টু, বিশেষ অতিথি ছিলেন, নাসের শাহরিয়ার জাহেদী মহুল, রাবির জনসংযোগ কর্মকর্তা প্রভাষ কুমার কর্মকার, বিভাগীয় কমিশনার নুর-উর-রহমান, উপ-কর কমিশনার আব্দুল মালেক, জেলা সমিতির প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি মিনারুল ইসলাম, সমিতির বর্তমান সাধারণ সম্পাদক মারুফ পারভেজ প্রমুখ।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে উপাচার্য বলেন, পৃথিবীতে সবকিছুতে দুটি পক্ষ। ভালো এবং খারাপ। আমাদেরকে সঠিকটাই বেছে নিতে হবে। এই জেলা সমিতির লক্ষ উদ্দেশ্যও যেন সবসময় ভালো কিছুৃ হয়। আমাদের সময়ে এমন জেলা সমিতি ছিলো না। সবাই একসাথে মিলেমিশে থাকতো।

চলমান কোটা সংস্কার আন্দোলন নিয়ে উপাচার্য বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা একজন বিচক্ষণ নেতা। তিনি কোটা আন্দোলনকারীদের দাবি মেনে কোটা বাতিল করেছেন। সংসদে ঘোষণা দিয়েছেন। ৭ সদস্যের কমিটি ঘোষণা করে দিয়েছেন। তারপরও কেন আন্দোলন করতে হবে?’

সন্ধ্যায় সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। অনুষ্ঠানে ‘কুঁড়ে ঘর’ ব্যান্ড দলের সদস্যরা গান পরিবেশন করেন। অনুষ্ঠানের সার্বিক সঞ্চালনায় ছিলেন, তানিয়া রহমান ও তানভীর আহমেদ অভী।

পাঠকের মতামত